ঢাকা ১২:৪৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
প্রবাসে বাংলার সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য ধরে রাখার লক্ষ্যে রোমে বৃহত্তম ঢাকাবাসীর পিঠা উৎসব নতুন তত্ত্ব ও জ্ঞান সৃষ্টি বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল উদ্দেশ্যঃ ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ জহিরুল হক ফ্রান্স দর্পণ পত্রিকার সম্পাদকের ভাইয়ের মৃত্যুতে প্যারিসে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত ইপিএস কমিউনিটি ইন ফ্রান্স এর উদ্যোগে মহান বিজয় দিবস পালিত গ্লোবাল জালালাবাদ এসোসিয়েশন ফ্রান্সের নবগঠিত কমিটির আত্মপ্রকাশ ফরাসি নাট্যমঞ্চে বাংলাদেশি শোয়েব বালাগঞ্জে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালিত রুপালী ব্যাংক লিমিটেড সুলতানপুর শাখার উদ্যোগে প্রকাশ্যে কৃষি ও পল্লী ঋণ বিতরণ অনুষ্ঠিত সাজাপ্রাপ্ত এক আসামীকে গ্রেফতার করেছে বালাগঞ্জ থানায় পুলিশ গহরপুরে কৃতি ফুটবলার লায়েক আহমদ সংবর্ধিত; জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে লেখাপড়ার গুরুত্ব অনুভব করেছি

উত্তপ্ত সমালোচনায় ম্যাক্রোঁর মসনদ কেঁপে উঠেছে

  • আপডেট সময় ১১:৩৮:৩৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৯ জুলাই ২০১৮
  • ৭৩৭ বার পড়া হয়েছে

মাত্রই ফ্রান্স ফুটবল দল বিশ্বজয় করে দেশে ফিরল আর রাশিয়া থেকে ফ্রান্স ফিরে আসা পর্যন্ত দলের সাথে ম্যাক্রোঁর আবেগ আর উচ্ছ্বাস সবার নজর কড়েছে।
কিন্তু ম্যাক্রোঁর কপালে সে আনন্দ বেশী স্থায়ী হল না। তার সব আনন্দ ম্লান করে দিল আলেক্সান্দ বেনালা। সোমবার ফ্রান্স ফুটবল দলকে প্রেসিডেন্টের বাস ভবন এলিজে প্রাসাদে দেয়া সংবর্ধনায় বেনালার উপস্থিতি।  আর যায় কোথায়!  ফ্রান্সের সবগুলো মিডিয়া ঝাপিয়ে পড়ে ম্যাক্রোঁর উপর! কিন্তু কেন?
কারনঃ গত ১ মে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদের ডাকা একটি সমাবেশকে ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশের হেলমেট পড়ে অংশ নেন এই বেনালা। তার পরনে পুলিশের কোন ইউনিফর্ম ছিল না। তাকে একজন ছাত্র ও একজন ছত্রীর উপর আক্রমণ করতে দেখা যায়।  আর তা ভিডিও করেন তাহা বুফা নামের এক ছাত্রের কেমেরায়। শুরু হয় তুমুল বিতর্ক। এ বিতর্কের মাঝেই তাকে দুই সপ্তাহের শাস্তি মূলক ছুটি দেয়া হয়। একই সাথে প্রেসিডেন্টের বিশেষ নিরাপত্তা বড় বিভাগের প্রধান থেকে সরিয়ে নেয়া হয়। বন্ধ হয় বিতর্ক।
কিন্তু সোমবার এলিজে প্রাসাদে খেলোয়াড়দের দেয়া সংবর্ধনা অনুষ্টানে আবার দেখা যায় বেনালাকে। শুরু হয় নতুন করে বিতর্ক!  বিতর্কের স্রুতে নড়ে উঠেছে মেক্রোঁর মসনদ। 
এই বিতর্কের মধ্যেই এই দিনের ঘটনা অনুসন্ধানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী  জেরার্ড কোলম্ব দেশের পুলিশ প্রধানকে প্রধান করে একটি কমিটি গঠন করেছেন, তারা ঐ দিনের ঘটনার একটি রিপোর্ট দিবেন।

কে এই বেনালাঃ তিনি ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা।  প্রেসিডেন্ট এর অফিসে কাজ শুরুর আগে তিনি ২০১৭ সালে ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর নির্বাচনি প্রচারণার সময় তার প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা হিসাবে দায়িত্বে ছিলেন।

ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

লক ডাউন পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবেলায় ফ্রান্সে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি

যুক্তরাজ্যে করোনার মধ্যেই শিশুদের মাঝে নতুন রোগের হানা

প্রবাসে বাংলার সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য ধরে রাখার লক্ষ্যে রোমে বৃহত্তম ঢাকাবাসীর পিঠা উৎসব

উত্তপ্ত সমালোচনায় ম্যাক্রোঁর মসনদ কেঁপে উঠেছে

আপডেট সময় ১১:৩৮:৩৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৯ জুলাই ২০১৮

মাত্রই ফ্রান্স ফুটবল দল বিশ্বজয় করে দেশে ফিরল আর রাশিয়া থেকে ফ্রান্স ফিরে আসা পর্যন্ত দলের সাথে ম্যাক্রোঁর আবেগ আর উচ্ছ্বাস সবার নজর কড়েছে।
কিন্তু ম্যাক্রোঁর কপালে সে আনন্দ বেশী স্থায়ী হল না। তার সব আনন্দ ম্লান করে দিল আলেক্সান্দ বেনালা। সোমবার ফ্রান্স ফুটবল দলকে প্রেসিডেন্টের বাস ভবন এলিজে প্রাসাদে দেয়া সংবর্ধনায় বেনালার উপস্থিতি।  আর যায় কোথায়!  ফ্রান্সের সবগুলো মিডিয়া ঝাপিয়ে পড়ে ম্যাক্রোঁর উপর! কিন্তু কেন?
কারনঃ গত ১ মে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদের ডাকা একটি সমাবেশকে ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশের হেলমেট পড়ে অংশ নেন এই বেনালা। তার পরনে পুলিশের কোন ইউনিফর্ম ছিল না। তাকে একজন ছাত্র ও একজন ছত্রীর উপর আক্রমণ করতে দেখা যায়।  আর তা ভিডিও করেন তাহা বুফা নামের এক ছাত্রের কেমেরায়। শুরু হয় তুমুল বিতর্ক। এ বিতর্কের মাঝেই তাকে দুই সপ্তাহের শাস্তি মূলক ছুটি দেয়া হয়। একই সাথে প্রেসিডেন্টের বিশেষ নিরাপত্তা বড় বিভাগের প্রধান থেকে সরিয়ে নেয়া হয়। বন্ধ হয় বিতর্ক।
কিন্তু সোমবার এলিজে প্রাসাদে খেলোয়াড়দের দেয়া সংবর্ধনা অনুষ্টানে আবার দেখা যায় বেনালাকে। শুরু হয় নতুন করে বিতর্ক!  বিতর্কের স্রুতে নড়ে উঠেছে মেক্রোঁর মসনদ। 
এই বিতর্কের মধ্যেই এই দিনের ঘটনা অনুসন্ধানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী  জেরার্ড কোলম্ব দেশের পুলিশ প্রধানকে প্রধান করে একটি কমিটি গঠন করেছেন, তারা ঐ দিনের ঘটনার একটি রিপোর্ট দিবেন।

কে এই বেনালাঃ তিনি ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা।  প্রেসিডেন্ট এর অফিসে কাজ শুরুর আগে তিনি ২০১৭ সালে ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর নির্বাচনি প্রচারণার সময় তার প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা হিসাবে দায়িত্বে ছিলেন।