ঢাকা ১১:১৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
প্যারিসে Point d’Aide – এইড পয়েন্ট এর নতুন অফিসের উদ্বোধন তরুণ সাহিত্যিক সাদাত হোসাইনকে প্যারিসে সংবর্ধনা দিলো ফ্রান্সপ্রবাসী বাংলাদেশীরা গাজীপুর জেলা সমিতি,ফ্রান্স’র দ্বি বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত : ফারুক খান সভাপতি, জুয়েল সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত কেবল উপবাসের নামই সিয়াম নয়, প্রকৃত মানুষ হওয়ার শিক্ষাই সিয়াম ফ্রান্সে একটি সর্বজন গ্রহণযোগ্য ‘বাংলাদেশ সমিতি’র তাগিদ, একটি প্রস্তাবনা শিশু কিশোরদের নানা ইভেন্ট নিয়ে ইপিএস কমিউনিটি ফ্রান্সের স্বাধীনতা দিবস পালন জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন ফ্রান্স’র নতুন কমিটির পরিচিতি ও ইফতার প্যারিসে ‘নকশী বাংলা ফাউন্ডেশন সম্মাননা’ পেলেন ফ্রান্স দর্পণ নির্বাহী সম্পাদক ফেরদৌস করিম আখঞ্জী নানা আয়োজনে প্যারিসে সাফের আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালন ‘পাঠশালা’ – ফরাসী ভাষা শিক্ষার স্কুল উদ্বোধন

পর্তুগালে চট্টগ্রাম প্রবাসীদের ঈদ পূনর্মিলনী, ঐতিহ্যবাহী মেজবান

  • আপডেট সময় ১০:৩১:২৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৬ জুন ২০১৮
  • ১৭৮ বার পড়া হয়েছে

রনি মোহাম্মদ, পর্তুগাল : পর্তুগালে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশীদের নিয়ে ঈদ পূনর্মিলনী ও ঐতিহ্যবাহী মেজবান আয়োজন করেছে দেশটিতে বসবাসরত চট্টগ্রামবাসী। প্রবাসে থেকেও চট্টগ্রামের আঞ্চলিক ঐতিহ্য লালনের প্রয়াসে রবিবার রাতে লিসবনের বাংলাদেশী অধ্যুষিত এলাকা মার্তৃম-মুনিজ এলাকা যেন চট্টগ্রামের ক্ষুদ্র অংশ তথা একখন্ড বাংলাদেশে পরিনত হয়েছিলো ঐতিহ্যবাহী মেজবান অনুষ্টানের মাধ্যমে।

ঈদ পরবর্তী পর্তুগালের রাজধানী লিসবন ও আশপাশের শহরে বসবাসরত চট্টগ্রাম প্রবাসী ছাড়াও বিপুলসংখ্যক বাংলাদেশি প্রবাসী এতে অংশনেন। ঐতিহ্যবাহী মেজবান আয়োজনের চট্টগ্রামবাসীর পক্ষে পরিকল্পনায় ও পরিচালনায় ছিলেন চট্টগ্রাম প্রবাসী মোঃ ইকবাল চৌধুরী, আবু হেনা চৌধুরী, মোঃ শাহাদাত হোসেন, মেজবাহ উল আলম রিগান। তাদের এই পরিকল্পনাতে পরবর্তীতে পর্তুগালে বসবাসরত চট্টগ্রামবাসী অন্যান্যরাও সহযোগিতায় এগিয়ে আসেন। মেজবানকে চট্টগ্রামের পরিপূর্ণ স্বাদ দিতে লিসবনের ফুড গার্ডেন, রাঁধুনি ও বেঙ্গল রেস্টুরেন্টে মেজবানের খাবারের রেসিপি অনুযায়ী রান্না ও পরিবেশন করেন।

প্রায় ১৫’শ প্রবাসী বাংলাদেশীদের অংশগ্রহণে পুরো অনুষ্ঠানটিই উৎসবের আমেজ ধারণ করে। প্রবাসী বাংলাদেশিরা মেজবানে অংশ নিয়ে চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী খাবারের স্বাদ নেন।

মেজবান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথী হিসেবে যোগ দেন বাংলাদেশ দূতাবাস লিসবনের রাষ্ট্রদূত জনাব মো: রুহুল আলম সিদ্দিকী। তিনি বলেন, ঈদ পরবর্তী সময়ে চট্টগ্রামবাসীর আয়োজনে ঈদ পূনর্মিলনী ও চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী মেজবান আয়োজনে বিপুল স্যংখক বাংলাদেশীদের একসঙ্গে দেখে ভালো লাগছে।

এধরণের আয়োজন কমিউনিটিতে একের প্রতি অন্যের সম্প্রীতি এবং সৌহার্দ্য আরো বৃদ্ধি পাবে। পরে তিনি সুন্দর আয়োজনের জন্য আয়োজকদের ধন্যবাদ জানান।

চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী মেজবানকে সুদূর পর্তুগালে ধারাবাহিকভাবে নিয়ে আসতে পারাটা একটি বড় ব্যাপার। শুধুমাত্র চট্টগ্রাম না হয়ে পুরো বাংলাদেশী কমিউনিটির মানুষদের অংশগ্রহণে ঐতিহ্যবাহী মেজবানের আয়োজকরা বলেন, কমিউনিটির মধ্যে সম্প্রীতি এবং সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্কের কারণেই আমাদের এই ধরনের আয়োজন সফল করা সম্ভব হয়েছে। সেই সঙ্গে মেজবানে অংশ নেওয়ায় সকল প্রবাসীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

লক ডাউন পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবেলায় ফ্রান্সে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি

যুক্তরাজ্যে করোনার মধ্যেই শিশুদের মাঝে নতুন রোগের হানা

প্যারিসে Point d’Aide – এইড পয়েন্ট এর নতুন অফিসের উদ্বোধন

পর্তুগালে চট্টগ্রাম প্রবাসীদের ঈদ পূনর্মিলনী, ঐতিহ্যবাহী মেজবান

আপডেট সময় ১০:৩১:২৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৬ জুন ২০১৮

রনি মোহাম্মদ, পর্তুগাল : পর্তুগালে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশীদের নিয়ে ঈদ পূনর্মিলনী ও ঐতিহ্যবাহী মেজবান আয়োজন করেছে দেশটিতে বসবাসরত চট্টগ্রামবাসী। প্রবাসে থেকেও চট্টগ্রামের আঞ্চলিক ঐতিহ্য লালনের প্রয়াসে রবিবার রাতে লিসবনের বাংলাদেশী অধ্যুষিত এলাকা মার্তৃম-মুনিজ এলাকা যেন চট্টগ্রামের ক্ষুদ্র অংশ তথা একখন্ড বাংলাদেশে পরিনত হয়েছিলো ঐতিহ্যবাহী মেজবান অনুষ্টানের মাধ্যমে।

ঈদ পরবর্তী পর্তুগালের রাজধানী লিসবন ও আশপাশের শহরে বসবাসরত চট্টগ্রাম প্রবাসী ছাড়াও বিপুলসংখ্যক বাংলাদেশি প্রবাসী এতে অংশনেন। ঐতিহ্যবাহী মেজবান আয়োজনের চট্টগ্রামবাসীর পক্ষে পরিকল্পনায় ও পরিচালনায় ছিলেন চট্টগ্রাম প্রবাসী মোঃ ইকবাল চৌধুরী, আবু হেনা চৌধুরী, মোঃ শাহাদাত হোসেন, মেজবাহ উল আলম রিগান। তাদের এই পরিকল্পনাতে পরবর্তীতে পর্তুগালে বসবাসরত চট্টগ্রামবাসী অন্যান্যরাও সহযোগিতায় এগিয়ে আসেন। মেজবানকে চট্টগ্রামের পরিপূর্ণ স্বাদ দিতে লিসবনের ফুড গার্ডেন, রাঁধুনি ও বেঙ্গল রেস্টুরেন্টে মেজবানের খাবারের রেসিপি অনুযায়ী রান্না ও পরিবেশন করেন।

প্রায় ১৫’শ প্রবাসী বাংলাদেশীদের অংশগ্রহণে পুরো অনুষ্ঠানটিই উৎসবের আমেজ ধারণ করে। প্রবাসী বাংলাদেশিরা মেজবানে অংশ নিয়ে চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী খাবারের স্বাদ নেন।

মেজবান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথী হিসেবে যোগ দেন বাংলাদেশ দূতাবাস লিসবনের রাষ্ট্রদূত জনাব মো: রুহুল আলম সিদ্দিকী। তিনি বলেন, ঈদ পরবর্তী সময়ে চট্টগ্রামবাসীর আয়োজনে ঈদ পূনর্মিলনী ও চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী মেজবান আয়োজনে বিপুল স্যংখক বাংলাদেশীদের একসঙ্গে দেখে ভালো লাগছে।

এধরণের আয়োজন কমিউনিটিতে একের প্রতি অন্যের সম্প্রীতি এবং সৌহার্দ্য আরো বৃদ্ধি পাবে। পরে তিনি সুন্দর আয়োজনের জন্য আয়োজকদের ধন্যবাদ জানান।

চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী মেজবানকে সুদূর পর্তুগালে ধারাবাহিকভাবে নিয়ে আসতে পারাটা একটি বড় ব্যাপার। শুধুমাত্র চট্টগ্রাম না হয়ে পুরো বাংলাদেশী কমিউনিটির মানুষদের অংশগ্রহণে ঐতিহ্যবাহী মেজবানের আয়োজকরা বলেন, কমিউনিটির মধ্যে সম্প্রীতি এবং সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্কের কারণেই আমাদের এই ধরনের আয়োজন সফল করা সম্ভব হয়েছে। সেই সঙ্গে মেজবানে অংশ নেওয়ায় সকল প্রবাসীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।