ঢাকা ০৬:২৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ মে ২০২৪, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
প্যারিসে Point d’Aide – এইড পয়েন্ট এর নতুন অফিসের উদ্বোধন তরুণ সাহিত্যিক সাদাত হোসাইনকে প্যারিসে সংবর্ধনা দিলো ফ্রান্সপ্রবাসী বাংলাদেশীরা গাজীপুর জেলা সমিতি,ফ্রান্স’র দ্বি বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত : ফারুক খান সভাপতি, জুয়েল সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত কেবল উপবাসের নামই সিয়াম নয়, প্রকৃত মানুষ হওয়ার শিক্ষাই সিয়াম ফ্রান্সে একটি সর্বজন গ্রহণযোগ্য ‘বাংলাদেশ সমিতি’র তাগিদ, একটি প্রস্তাবনা শিশু কিশোরদের নানা ইভেন্ট নিয়ে ইপিএস কমিউনিটি ফ্রান্সের স্বাধীনতা দিবস পালন জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন ফ্রান্স’র নতুন কমিটির পরিচিতি ও ইফতার প্যারিসে ‘নকশী বাংলা ফাউন্ডেশন সম্মাননা’ পেলেন ফ্রান্স দর্পণ নির্বাহী সম্পাদক ফেরদৌস করিম আখঞ্জী নানা আয়োজনে প্যারিসে সাফের আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালন ‘পাঠশালা’ – ফরাসী ভাষা শিক্ষার স্কুল উদ্বোধন

প্যারিসে ফ্রাঙ্কো বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ ফেস্টিভাল ২০২২: জেমসের সূরে উন্মাতাল ফ্রান্সপ্রবাসী বাংলাদেশীরা

  • আপডেট সময় ০৮:৫২:২৯ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৯ জুন ২০২২
  • ১৫৫ বার পড়া হয়েছে

Warning: Attempt to read property "post_excerpt" on null in /home/u305720254/domains/francedorpan.com/public_html/wp-content/themes/newspaper-pro/template-parts/common/single_two.php on line 117

নজমুল কবিরঃ
দুপুর গড়াতে না গড়াতেই প্যারিসের উপশহর স্তা’র স্টেডিয়ামমুখী বাংলাদেশীরা। গুরু আসছেন এই শহরে, শিল্প-সাহিত্য আর সংস্কৃতির শহরে। তিনি মঞ্চে উঠবেন সেই রাত ৯ টার দিকে। কিন্তু বিকেল ৩টা থেকেই বাঙালীর স্রোত নামতে থাকে এই ছোট্ট উপশহর স্তায়! স্থানীয় মানুষেরা অবাক তাকিয়ে রয়। কেননা এই তল্লাটে এমন মানুষগুলোর যাতায়াত একেবারেই অনুপস্থিত। তা-ও আবার দলে দলে!

বাংলাদেশীদের জন্য এটি অবশ্যই একেবারে স্বাভাবিক। গুরু গান গাইবেন আর আমরা আসবো বা তা কি হয়! যেন হ্যামিলনের সেই মুগ্ধতা ছড়ানো বাঁশির সূরের টানে, মানুষ ছুটছে তাই।

রোববার (২৬ জুন) ফ্রান্স বাংলাদেশ বন্ধুত্বের অর্ধশত বছরপূর্তি আর ওফিওরা প্রফেশনাল সার্ভিসের দশ বছরপূর্তিকে উদযাপন করবার লক্ষ্যে সংগীত অনুরাগী প্রবাসী বাংলাদেশীদের এমন স্রোত স্টেডিয়াম অভিমুখী। বাঁধভাঙা উচ্ছাস ছড়িয়ে পড়ে উৎসব এলাকা ঘিরে।

এই আয়োজন তরুণ উদ্যোক্তা, ফরাসী মূলধারার রাজনীতিতে মিশে থাকা উদীয়মান এবং স্থানীয় মিউনিসিপ্যালে নির্বাচিত কাউন্সিলর বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত ফরাসী কৌশিক রাব্বানী খান। আর উৎসবের মূল থীম ফ্রান্স এবং বাংলাদেশের মধ্যকার পঞ্চাশ বছর পূর্তি উৎসব পালনে সহযোগী ফ্রান্সে বাংলাদেশ দূতাবাস, প্যারিস। পাশাপাশি স্থানীয় স্তা শহরের মেয়র এবং মেইরী একই ভূমিকায় এগিয়ে এসেছে। ফলে এই উদযাপনটি পরিপূর্ণভাবে ফ্রাঙ্কো বাংলাদেশীদের একটি যৌথ উৎসবে পরিনত হয়।

অফিওরা প্রধান রাব্বানী খান তার সূচনা বক্তব্যে

এই উদযাপনের মূল আকর্ষণ নগর বাউল জেমস। আর ছিলো ব্যান্ড দল শিরোনামহীন। যুক্তরাষ্ট্র থেকে এসেছে সাম্প্রতিককালের সেনসেশন ‘আইলারে নয়া দামান’ খ্যাত মুজা। গান গেয়েছে স্থানীয় শিল্পী ইমতিয়াজ রনির ব্যান্ড দল ভাই’স, ব্যান্ড দল মিরর, র‍্যাপ শিল্পী শান্ত। সোমা দাসের নেতৃত্বে দেশাত্মবোধক গান গেয়েছে ফ্রেন্স বাংলা স্কুলের শিক্ষার্থীরা। কবিতা আবৃত্তি করেছে এশা খান চৌধুরী।

বিখ্যাত ব্যান্ডদল মাইলস্ এর জনপ্রিয় গান ‘ফিরিয়ে দাও আমার প্রেম তুমি ফিরিয়ে দাও…’ প্রেম ফিরিয়ে দেয়ার এমন করুন আবদার এবং প্রায় অসম্ভব বায়না নিয়ে চমৎকার উপস্থাপনা দিয়ে শুরু হয় অনুষ্ঠানের। প্যারিসে পরিচিত মুখ ইমতিয়াজ রনি তার ব্যান্ড দল VAI’S নিয়ে স্টেজে উঠে এই জনপ্রিয় গানটি পরিবেশন করেন। লিড গিটারিস্ট ভিকি রয়, কী বোর্ডিস্ট আশিক আশিকুজ্জামান আর রবীন চৌধুরীর ব্যান্ডের মনমাতানো কম্পোজিশন সত্যিই অনেক আশাবাদের জন্ম দেয়। প্যারিসের মিরর ‘সেই তুমি কেন অচেনা হলে!’…. প্রয়াত শিল্পী আয়ুব বাচ্চুর বিস্ময়সূচক গান নিয়ে আসে। উপস্থিত দর্শকরাও গেয়ে ওঠে ‘সেই আমি কেন তোমাকে দুঃখ দিলেম, ক্যামন করে এত অচেনা হলে তুমি, কীভাবে এতো বদলে গেছি এই আমি….’।

মঞ্চে আসেন শান্ত। র‍্যাপ শিল্পী। তার অন্তর ছোঁয়া গান ‘প্রবাসী’, রেমিট্যান্স যোদ্ধা আর সেত আন্নি – যা ইতোমধ্যেই প্যারিসবাসীকে নাড়া দিয়েছে – সেগুলোই গেয়ে শোনালো। বিশেষ স্টাইলে চলাফেরা করা বিশেষ কায়দার শিল্পীর বিশেষ ধরনের প্রেজেন্টেশন দর্শক শ্রোতাদেরও বিশেষ আনন্দ প্রদান করে।

অতঃপর গুরু এলেন! নগর বাউল। জেমস। পুরো স্টেডিয়াম জুড়ে এক উদ্বেল, উচ্ছল, উন্মাতাল ঢেউ যেন আছড়ে পড়লো। তিনি এলেন চিরচেনা গিটার হাতে। মঞ্চে উঠেই উপস্থিত দর্শক-শ্রোতাদের উদ্দেশে ভালবাসা জানালেন।

বাংলাদেশের উত্তর জনপদ নওগাঁতে জন্ম নেয়া এবং পূর্বাঞ্চলের চট্টগ্রামে বেড়ে ওঠা এই সংগীতশিল্পী (আসল নাম ফারুক মহফুজ আনাম!) যিনি বাংলাদেশে হার্ড রক সংগীতের বিকাশ ও জনপ্রিয় করে তুলেছেন, যাকে বাংলাদেশে ‘সাইকোডেলিক রক’ এর প্রবর্তক বলে মানে। যার পরিচিতি ‘জেমস’ নামে, যাকে ডাকা হয় ‘গুরু’ নামে!

তিনি তার এলবাম খুলে শুরু করলেন। একে একে গাইলেন, ‘লেইছ ফিতা লেইছ’, ‘গুরু ঘর বানাইলা কী দিয়া দরজা জানালা কিছু নাই, কেমনে তোমায় দেখতে পাই’, ‘দশ মাস দশ দিন ধরে গর্ভে ধারন, কষ্টের তীব্রতায় করেছে লালন’, ‘কানামাছি’, ‘বিজলী’, ‘আসবার কালে আসলাম একা যাইবার কালে যাব একা’, ‘চাল চালে আপনি ঘর এ্যায় মেরে হাম ছফর’, ‘গোপনে আরো গোপনে, পৃথিবীর কেউ যেন জানতে না পারে’, ‘পাগলা হাওয়ার তরে মাটির পিদিম নিভু নিভু করে’, ‘ভিগি ভিগি ভিগি সি হ্যা রাতে’।

অনবদ্য এক সন্ধ্যা এমনি সংগীতে সাজানো ছিলো জেমস এর ডালা। তুমুল জনপ্রিয় গানগুলো শুনিয়ে উপস্থিত দর্শক-শ্রোতাদের মুগ্ধ করে দেয়।

এই যে এক আনন্দ সন্ধ্যা – এটির আয়োজনে ছিলো OFIORA. বাংলাদেশ বংশোদ্ভূত ফরাসী যুবক (যিনি প্যারিসে ‘আভেক রাব্বানী’ বলে পরিচিত)। তারই শ্রমে ঘামে গড়ে ওঠা প্রতিষ্ঠান ওফিওরা যার ১০ বছর পূর্তি হয় এবছর। পাশাপাশি ফ্রান্স এবং বাংলাদেশের কূটনীতিক বন্ধুত্বের পঞ্চাশ বছর পূর্তি। এই যুগল মাহেন্দ্রক্ষণ পালনের উদ্দেশ্যে এমনতর আয়োজন।

বাংলাদেশ দূতাবাসের সহযোগিতায় এমন একটি মেগা ইভেন্ট অনুষ্ঠিত হলো। দূতাবাসের পাশাপাশি স্তা মিউনিসিপ্যাল কর্তৃপক্ষও অনুষ্ঠান আয়োজনে ভূমিকা রাখে। ইভেন্টটির টাইটেল স্পন্সর ছিলো শাহ গ্রুপ।

অনুষ্ঠানে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসের মতই ফ্রান্সেও বাংলাদেশ দূতাবাস কর্তৃক বাংলাদেশের বহুল আলোচিত পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উদযাপন করা হয়। এতে ফ্রান্সের প্যারিসস্থ বিভিন্ন দেশের কূটনীতিক এবং কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। উক্ত পর্বে বক্তব্য রাখেন, স্তা পৌর এলাকার মেয়র আযেদিন তাইবি, ফ্রান্সে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত খন্দকার মোহাম্মদ তালহা, স্তা পৌর এলাকার কাউন্সিলর ও ওফিওরা প্রধান রাব্বানী খান, অফিওরা সাধারণ সম্পাদক শুভ দাস, শাহ গ্রুপের প্রধান শাহ আলম সুমন, অনুষ্ঠানের অন্যতম স্পন্সর ও ওরপি সহ পরিচালক ফারুক খান, ওরপির পরিচালক ওদিন তাউতি, ওমি ভয়াজের প্রধান তানজিম হুসেন প্রমুখ।

ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

লক ডাউন পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবেলায় ফ্রান্সে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি

যুক্তরাজ্যে করোনার মধ্যেই শিশুদের মাঝে নতুন রোগের হানা

প্যারিসে Point d’Aide – এইড পয়েন্ট এর নতুন অফিসের উদ্বোধন

প্যারিসে ফ্রাঙ্কো বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ ফেস্টিভাল ২০২২: জেমসের সূরে উন্মাতাল ফ্রান্সপ্রবাসী বাংলাদেশীরা

আপডেট সময় ০৮:৫২:২৯ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৯ জুন ২০২২

নজমুল কবিরঃ
দুপুর গড়াতে না গড়াতেই প্যারিসের উপশহর স্তা’র স্টেডিয়ামমুখী বাংলাদেশীরা। গুরু আসছেন এই শহরে, শিল্প-সাহিত্য আর সংস্কৃতির শহরে। তিনি মঞ্চে উঠবেন সেই রাত ৯ টার দিকে। কিন্তু বিকেল ৩টা থেকেই বাঙালীর স্রোত নামতে থাকে এই ছোট্ট উপশহর স্তায়! স্থানীয় মানুষেরা অবাক তাকিয়ে রয়। কেননা এই তল্লাটে এমন মানুষগুলোর যাতায়াত একেবারেই অনুপস্থিত। তা-ও আবার দলে দলে!

বাংলাদেশীদের জন্য এটি অবশ্যই একেবারে স্বাভাবিক। গুরু গান গাইবেন আর আমরা আসবো বা তা কি হয়! যেন হ্যামিলনের সেই মুগ্ধতা ছড়ানো বাঁশির সূরের টানে, মানুষ ছুটছে তাই।

রোববার (২৬ জুন) ফ্রান্স বাংলাদেশ বন্ধুত্বের অর্ধশত বছরপূর্তি আর ওফিওরা প্রফেশনাল সার্ভিসের দশ বছরপূর্তিকে উদযাপন করবার লক্ষ্যে সংগীত অনুরাগী প্রবাসী বাংলাদেশীদের এমন স্রোত স্টেডিয়াম অভিমুখী। বাঁধভাঙা উচ্ছাস ছড়িয়ে পড়ে উৎসব এলাকা ঘিরে।

এই আয়োজন তরুণ উদ্যোক্তা, ফরাসী মূলধারার রাজনীতিতে মিশে থাকা উদীয়মান এবং স্থানীয় মিউনিসিপ্যালে নির্বাচিত কাউন্সিলর বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত ফরাসী কৌশিক রাব্বানী খান। আর উৎসবের মূল থীম ফ্রান্স এবং বাংলাদেশের মধ্যকার পঞ্চাশ বছর পূর্তি উৎসব পালনে সহযোগী ফ্রান্সে বাংলাদেশ দূতাবাস, প্যারিস। পাশাপাশি স্থানীয় স্তা শহরের মেয়র এবং মেইরী একই ভূমিকায় এগিয়ে এসেছে। ফলে এই উদযাপনটি পরিপূর্ণভাবে ফ্রাঙ্কো বাংলাদেশীদের একটি যৌথ উৎসবে পরিনত হয়।

অফিওরা প্রধান রাব্বানী খান তার সূচনা বক্তব্যে

এই উদযাপনের মূল আকর্ষণ নগর বাউল জেমস। আর ছিলো ব্যান্ড দল শিরোনামহীন। যুক্তরাষ্ট্র থেকে এসেছে সাম্প্রতিককালের সেনসেশন ‘আইলারে নয়া দামান’ খ্যাত মুজা। গান গেয়েছে স্থানীয় শিল্পী ইমতিয়াজ রনির ব্যান্ড দল ভাই’স, ব্যান্ড দল মিরর, র‍্যাপ শিল্পী শান্ত। সোমা দাসের নেতৃত্বে দেশাত্মবোধক গান গেয়েছে ফ্রেন্স বাংলা স্কুলের শিক্ষার্থীরা। কবিতা আবৃত্তি করেছে এশা খান চৌধুরী।

বিখ্যাত ব্যান্ডদল মাইলস্ এর জনপ্রিয় গান ‘ফিরিয়ে দাও আমার প্রেম তুমি ফিরিয়ে দাও…’ প্রেম ফিরিয়ে দেয়ার এমন করুন আবদার এবং প্রায় অসম্ভব বায়না নিয়ে চমৎকার উপস্থাপনা দিয়ে শুরু হয় অনুষ্ঠানের। প্যারিসে পরিচিত মুখ ইমতিয়াজ রনি তার ব্যান্ড দল VAI’S নিয়ে স্টেজে উঠে এই জনপ্রিয় গানটি পরিবেশন করেন। লিড গিটারিস্ট ভিকি রয়, কী বোর্ডিস্ট আশিক আশিকুজ্জামান আর রবীন চৌধুরীর ব্যান্ডের মনমাতানো কম্পোজিশন সত্যিই অনেক আশাবাদের জন্ম দেয়। প্যারিসের মিরর ‘সেই তুমি কেন অচেনা হলে!’…. প্রয়াত শিল্পী আয়ুব বাচ্চুর বিস্ময়সূচক গান নিয়ে আসে। উপস্থিত দর্শকরাও গেয়ে ওঠে ‘সেই আমি কেন তোমাকে দুঃখ দিলেম, ক্যামন করে এত অচেনা হলে তুমি, কীভাবে এতো বদলে গেছি এই আমি….’।

মঞ্চে আসেন শান্ত। র‍্যাপ শিল্পী। তার অন্তর ছোঁয়া গান ‘প্রবাসী’, রেমিট্যান্স যোদ্ধা আর সেত আন্নি – যা ইতোমধ্যেই প্যারিসবাসীকে নাড়া দিয়েছে – সেগুলোই গেয়ে শোনালো। বিশেষ স্টাইলে চলাফেরা করা বিশেষ কায়দার শিল্পীর বিশেষ ধরনের প্রেজেন্টেশন দর্শক শ্রোতাদেরও বিশেষ আনন্দ প্রদান করে।

অতঃপর গুরু এলেন! নগর বাউল। জেমস। পুরো স্টেডিয়াম জুড়ে এক উদ্বেল, উচ্ছল, উন্মাতাল ঢেউ যেন আছড়ে পড়লো। তিনি এলেন চিরচেনা গিটার হাতে। মঞ্চে উঠেই উপস্থিত দর্শক-শ্রোতাদের উদ্দেশে ভালবাসা জানালেন।

বাংলাদেশের উত্তর জনপদ নওগাঁতে জন্ম নেয়া এবং পূর্বাঞ্চলের চট্টগ্রামে বেড়ে ওঠা এই সংগীতশিল্পী (আসল নাম ফারুক মহফুজ আনাম!) যিনি বাংলাদেশে হার্ড রক সংগীতের বিকাশ ও জনপ্রিয় করে তুলেছেন, যাকে বাংলাদেশে ‘সাইকোডেলিক রক’ এর প্রবর্তক বলে মানে। যার পরিচিতি ‘জেমস’ নামে, যাকে ডাকা হয় ‘গুরু’ নামে!

তিনি তার এলবাম খুলে শুরু করলেন। একে একে গাইলেন, ‘লেইছ ফিতা লেইছ’, ‘গুরু ঘর বানাইলা কী দিয়া দরজা জানালা কিছু নাই, কেমনে তোমায় দেখতে পাই’, ‘দশ মাস দশ দিন ধরে গর্ভে ধারন, কষ্টের তীব্রতায় করেছে লালন’, ‘কানামাছি’, ‘বিজলী’, ‘আসবার কালে আসলাম একা যাইবার কালে যাব একা’, ‘চাল চালে আপনি ঘর এ্যায় মেরে হাম ছফর’, ‘গোপনে আরো গোপনে, পৃথিবীর কেউ যেন জানতে না পারে’, ‘পাগলা হাওয়ার তরে মাটির পিদিম নিভু নিভু করে’, ‘ভিগি ভিগি ভিগি সি হ্যা রাতে’।

অনবদ্য এক সন্ধ্যা এমনি সংগীতে সাজানো ছিলো জেমস এর ডালা। তুমুল জনপ্রিয় গানগুলো শুনিয়ে উপস্থিত দর্শক-শ্রোতাদের মুগ্ধ করে দেয়।

এই যে এক আনন্দ সন্ধ্যা – এটির আয়োজনে ছিলো OFIORA. বাংলাদেশ বংশোদ্ভূত ফরাসী যুবক (যিনি প্যারিসে ‘আভেক রাব্বানী’ বলে পরিচিত)। তারই শ্রমে ঘামে গড়ে ওঠা প্রতিষ্ঠান ওফিওরা যার ১০ বছর পূর্তি হয় এবছর। পাশাপাশি ফ্রান্স এবং বাংলাদেশের কূটনীতিক বন্ধুত্বের পঞ্চাশ বছর পূর্তি। এই যুগল মাহেন্দ্রক্ষণ পালনের উদ্দেশ্যে এমনতর আয়োজন।

বাংলাদেশ দূতাবাসের সহযোগিতায় এমন একটি মেগা ইভেন্ট অনুষ্ঠিত হলো। দূতাবাসের পাশাপাশি স্তা মিউনিসিপ্যাল কর্তৃপক্ষও অনুষ্ঠান আয়োজনে ভূমিকা রাখে। ইভেন্টটির টাইটেল স্পন্সর ছিলো শাহ গ্রুপ।

অনুষ্ঠানে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসের মতই ফ্রান্সেও বাংলাদেশ দূতাবাস কর্তৃক বাংলাদেশের বহুল আলোচিত পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উদযাপন করা হয়। এতে ফ্রান্সের প্যারিসস্থ বিভিন্ন দেশের কূটনীতিক এবং কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। উক্ত পর্বে বক্তব্য রাখেন, স্তা পৌর এলাকার মেয়র আযেদিন তাইবি, ফ্রান্সে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত খন্দকার মোহাম্মদ তালহা, স্তা পৌর এলাকার কাউন্সিলর ও ওফিওরা প্রধান রাব্বানী খান, অফিওরা সাধারণ সম্পাদক শুভ দাস, শাহ গ্রুপের প্রধান শাহ আলম সুমন, অনুষ্ঠানের অন্যতম স্পন্সর ও ওরপি সহ পরিচালক ফারুক খান, ওরপির পরিচালক ওদিন তাউতি, ওমি ভয়াজের প্রধান তানজিম হুসেন প্রমুখ।