ঢাকা ১০:৪২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
ইতালির আরেচ্ছোতে বর্ণাঢ্য একুশে মেলা: মুসলিম কমিউনিটির কবরস্থান বাস্তবায়নের দাবী ফিলিস্তিনিদের পাশে দাঁড়াবে বাংলাদেশ দারিদ্র বিমোচন ফাউন্ডেশন: ফিলিস্তিন ও বাংলাদেশ দূতাবাসে বিশেষ বৈঠক মামুন হাওলাদার প্রবাসে বাংলার সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য ধরে রাখার লক্ষ্যে রোমে বৃহত্তম ঢাকাবাসীর পিঠা উৎসব নতুন তত্ত্ব ও জ্ঞান সৃষ্টি বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল উদ্দেশ্যঃ ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ জহিরুল হক ফ্রান্স দর্পণ পত্রিকার সম্পাদকের ভাইয়ের মৃত্যুতে প্যারিসে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত ইপিএস কমিউনিটি ইন ফ্রান্স এর উদ্যোগে মহান বিজয় দিবস পালিত গ্লোবাল জালালাবাদ এসোসিয়েশন ফ্রান্সের নবগঠিত কমিটির আত্মপ্রকাশ ফরাসি নাট্যমঞ্চে বাংলাদেশি শোয়েব বালাগঞ্জে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালিত রুপালী ব্যাংক লিমিটেড সুলতানপুর শাখার উদ্যোগে প্রকাশ্যে কৃষি ও পল্লী ঋণ বিতরণ অনুষ্ঠিত

ফ্রান্সে কারাগার থেকে হেলিকপ্টারে পালালেন অপরাধী

  • আপডেট সময় ০৪:৫৩:৫৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ১ জুলাই ২০১৮
  • ৮৯৫ বার পড়া হয়েছে

ফ্রান্সের এক অপরাধী কারাগার থেকে হেলিকপ্টারে করে পালিয়ে গেছেন। তিন সশস্ত্র সহযোগী হেলিকপ্টার নিয়ে কারাগারের ভেতরে এসে তাঁকে নিয়ে পালিয়ে যায়। পুরো এ ঘটনা মাত্র কয়েক মিনিটে শেষ হয়। মনে হতে পারে সিনেমার গল্প। কিন্তু এ ঘটনা বাস্তবেই ফ্রান্সে আজ রোববার ঘটেছে।

আলজেরীয় বংশোদ্ভূত রেদোয়ান ফাইদ পুলিশের অপরাধীর তালিকায় শীর্ষে ছিলেন। ফাইদ প্যারিসের ‘রু’ নামের একটি কারাগারে বন্দী ছিলেন। তাঁর তিনজন সশস্ত্র সহযোগী একটি হেলিকপ্টার নিয়ে কারাগারের ভেতরে আসে। তারপর কোনো রক্তপাত ছাড়াই ফাইদকে নিয়ে হেলিকপ্টারে করে তারা পালিয়ে যায়। পুরো ঘটনায় সময় লাগে মাত্র কয়েক মিনিট। পরে ওই কারাগার থেকে ৬০ কিলোমিটার দূরে গোনেসা নামের এক এলাকায় পোড়া অবস্থায় হেলিকপ্টারটি খুঁজে পায় পুলিশ। পুলিশ ও তদন্তকারীদের ধারণা, সেখান থেকে গাড়িতে করে পালিয়েছেন রেদোয়ান ফাইদ ও তাঁর সহযোগীরা।

হেলিকপ্টার নিয়ে কারাগার থেকে এভাবে পালিয়ে যাওয়ার ঘটনা সিনেমার নাটকীয়তাকেও হার মানিয়েছে। এ ঘটনায় ফরাসী পুলিশের কর্মকর্তারা বিব্রতকর অবস্থার মধ্য পড়েছেন। তবে ফ্রান্সের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা বলেন, ‘পলাতক রেদোয়ানকে ধরতে সম্ভব সবকিছুই করা হবে।’

প্যারিসের ‘রু’ নামের এই কারাগারেই বন্দী ছিলেন রেদোয়ান ফাইদ। ছবি: এএফপিপ্যারিসের ‘রু’ নামের এই কারাগারেই বন্দী ছিলেন রেদোয়ান ফাইদ। ছবি: এএফপিরেদোয়ান ফাইদ এর আগেও ২০১৩ সালে একবার কারাগার থেকে পালিয়েছিলেন। চার কারারক্ষীকে জিম্মি করে কয়েকটি বিস্ফোরণ ঘটিয়ে দরজা ভেঙে কারাগার থেকে পালিয়ে গিয়েছিলেন ফাইদ। রোববার রেদোয়ানকে ফ্রান্সের উত্তরাঞ্চলীয় একটি কারাগারে নিয়ে আসার আধা ঘণ্টার মধ্যেই পালিয়ে গেলেন।

৪৬ বছর বয়সী রেদোয়ান ফাইদকে ডাকাতির মামলায় অভিযোগে কারাদণ্ড দেন আদালত। ডাকাতির ওই ঘটনার সময় পুলিশের একজন কর্মকর্তা নিহত হন। হেলিকপ্টার নিয়ে কারাগার থেকে এভাবে পালিয়ে যাওয়ার ঘটনায় বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছেন ফরাসি পুলিশের কর্মকর্তারা। রেদোয়ান ফাইদ এর আগেও চারজন কারারক্ষীকে জিম্মি করে কারাগার থেকে পালিয়ে গিয়েছিলেন।

প্যারিসের ‘রু’ নামের এই কারাগারেই বন্দী ছিলেন রেদোয়ান ফাইদ। ছবি: এএফপিপ্যারিসের ‘রু’ নামের এই কারাগারেই বন্দী ছিলেন রেদোয়ান ফাইদ। ছবি: এএফপিপ্যারিসের এক শহরতলিতে রেদোয়ান ফাইদের জন্ম। অপরাধপ্রবণ এই এলাকায় বেড়ে ওঠা এবং নানা অভিজ্ঞতা নিয়ে ২০০৯ সালে একটি বই লিখেছিলেন রেদোয়ান। সেখানে বর্ণনা করেছেন, কীভাবে ধীরে ধীরে অপরাধ জগতে ঢুকে পড়েছিলেন। পরে অবশ্য তিনি দাবি করেন, অপরাধের জগৎ থেকে তিনি বেরিয়ে এসেছেন। কিন্তু এর এক বছর পরেই ব্যর্থ এক ডাকাতির চেষ্টার সঙ্গে জড়িত থাকার দায়ের তাঁকে ২৫ বছরের কারাদণ্ড দেন আদালত।

৯০-এর দশকে রেদোয়ান ফাইদ একটি অপরাধী দলকে নেতৃত্ব দিতেন। এ দলের সদস্যরা প্যারিসে ডাকাতি ও চাঁদাবাজিতে লিপ্ত ছিল। তথ্যসূত্র: বিবিসি ও রয়টার্স

ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

লক ডাউন পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবেলায় ফ্রান্সে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি

যুক্তরাজ্যে করোনার মধ্যেই শিশুদের মাঝে নতুন রোগের হানা

ইতালির আরেচ্ছোতে বর্ণাঢ্য একুশে মেলা: মুসলিম কমিউনিটির কবরস্থান বাস্তবায়নের দাবী

ফ্রান্সে কারাগার থেকে হেলিকপ্টারে পালালেন অপরাধী

আপডেট সময় ০৪:৫৩:৫৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ১ জুলাই ২০১৮

ফ্রান্সের এক অপরাধী কারাগার থেকে হেলিকপ্টারে করে পালিয়ে গেছেন। তিন সশস্ত্র সহযোগী হেলিকপ্টার নিয়ে কারাগারের ভেতরে এসে তাঁকে নিয়ে পালিয়ে যায়। পুরো এ ঘটনা মাত্র কয়েক মিনিটে শেষ হয়। মনে হতে পারে সিনেমার গল্প। কিন্তু এ ঘটনা বাস্তবেই ফ্রান্সে আজ রোববার ঘটেছে।

আলজেরীয় বংশোদ্ভূত রেদোয়ান ফাইদ পুলিশের অপরাধীর তালিকায় শীর্ষে ছিলেন। ফাইদ প্যারিসের ‘রু’ নামের একটি কারাগারে বন্দী ছিলেন। তাঁর তিনজন সশস্ত্র সহযোগী একটি হেলিকপ্টার নিয়ে কারাগারের ভেতরে আসে। তারপর কোনো রক্তপাত ছাড়াই ফাইদকে নিয়ে হেলিকপ্টারে করে তারা পালিয়ে যায়। পুরো ঘটনায় সময় লাগে মাত্র কয়েক মিনিট। পরে ওই কারাগার থেকে ৬০ কিলোমিটার দূরে গোনেসা নামের এক এলাকায় পোড়া অবস্থায় হেলিকপ্টারটি খুঁজে পায় পুলিশ। পুলিশ ও তদন্তকারীদের ধারণা, সেখান থেকে গাড়িতে করে পালিয়েছেন রেদোয়ান ফাইদ ও তাঁর সহযোগীরা।

হেলিকপ্টার নিয়ে কারাগার থেকে এভাবে পালিয়ে যাওয়ার ঘটনা সিনেমার নাটকীয়তাকেও হার মানিয়েছে। এ ঘটনায় ফরাসী পুলিশের কর্মকর্তারা বিব্রতকর অবস্থার মধ্য পড়েছেন। তবে ফ্রান্সের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা বলেন, ‘পলাতক রেদোয়ানকে ধরতে সম্ভব সবকিছুই করা হবে।’

প্যারিসের ‘রু’ নামের এই কারাগারেই বন্দী ছিলেন রেদোয়ান ফাইদ। ছবি: এএফপিপ্যারিসের ‘রু’ নামের এই কারাগারেই বন্দী ছিলেন রেদোয়ান ফাইদ। ছবি: এএফপিরেদোয়ান ফাইদ এর আগেও ২০১৩ সালে একবার কারাগার থেকে পালিয়েছিলেন। চার কারারক্ষীকে জিম্মি করে কয়েকটি বিস্ফোরণ ঘটিয়ে দরজা ভেঙে কারাগার থেকে পালিয়ে গিয়েছিলেন ফাইদ। রোববার রেদোয়ানকে ফ্রান্সের উত্তরাঞ্চলীয় একটি কারাগারে নিয়ে আসার আধা ঘণ্টার মধ্যেই পালিয়ে গেলেন।

৪৬ বছর বয়সী রেদোয়ান ফাইদকে ডাকাতির মামলায় অভিযোগে কারাদণ্ড দেন আদালত। ডাকাতির ওই ঘটনার সময় পুলিশের একজন কর্মকর্তা নিহত হন। হেলিকপ্টার নিয়ে কারাগার থেকে এভাবে পালিয়ে যাওয়ার ঘটনায় বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছেন ফরাসি পুলিশের কর্মকর্তারা। রেদোয়ান ফাইদ এর আগেও চারজন কারারক্ষীকে জিম্মি করে কারাগার থেকে পালিয়ে গিয়েছিলেন।

প্যারিসের ‘রু’ নামের এই কারাগারেই বন্দী ছিলেন রেদোয়ান ফাইদ। ছবি: এএফপিপ্যারিসের ‘রু’ নামের এই কারাগারেই বন্দী ছিলেন রেদোয়ান ফাইদ। ছবি: এএফপিপ্যারিসের এক শহরতলিতে রেদোয়ান ফাইদের জন্ম। অপরাধপ্রবণ এই এলাকায় বেড়ে ওঠা এবং নানা অভিজ্ঞতা নিয়ে ২০০৯ সালে একটি বই লিখেছিলেন রেদোয়ান। সেখানে বর্ণনা করেছেন, কীভাবে ধীরে ধীরে অপরাধ জগতে ঢুকে পড়েছিলেন। পরে অবশ্য তিনি দাবি করেন, অপরাধের জগৎ থেকে তিনি বেরিয়ে এসেছেন। কিন্তু এর এক বছর পরেই ব্যর্থ এক ডাকাতির চেষ্টার সঙ্গে জড়িত থাকার দায়ের তাঁকে ২৫ বছরের কারাদণ্ড দেন আদালত।

৯০-এর দশকে রেদোয়ান ফাইদ একটি অপরাধী দলকে নেতৃত্ব দিতেন। এ দলের সদস্যরা প্যারিসে ডাকাতি ও চাঁদাবাজিতে লিপ্ত ছিল। তথ্যসূত্র: বিবিসি ও রয়টার্স