ঢাকা ১২:৩৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
তরুণ উদ্যোক্তা মাসুদ মিয়া-আয়ুব হাসানের যৌথ প্রয়াসের প্রতিষ্ঠান পিংক সিটি নিউ স্টার ফুটবল ক্লাব রতনপুরের সহসভাপতি সাইফুল ইসলাম সংবর্ধিত বালাগঞ্জে শান্তিপুর্ণভাবে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন সম্পন্ন : চমক দেখিয়ে আনহার মিয়া চেয়ারম্যান নির্বাচিত ফ্রান্সে বাংলাদেশি অভিবাসীদের জীবনমান উন্নয়নে ফরাসি জাতীয়তা বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত প্যারিসে Point d’Aide – এইড পয়েন্ট এর নতুন অফিসের উদ্বোধন তরুণ সাহিত্যিক সাদাত হোসাইনকে প্যারিসে সংবর্ধনা দিলো ফ্রান্সপ্রবাসী বাংলাদেশীরা গাজীপুর জেলা সমিতি,ফ্রান্স’র দ্বি বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত : ফারুক খান সভাপতি, জুয়েল সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত কেবল উপবাসের নামই সিয়াম নয়, প্রকৃত মানুষ হওয়ার শিক্ষাই সিয়াম ফ্রান্সে একটি সর্বজন গ্রহণযোগ্য ‘বাংলাদেশ সমিতি’র তাগিদ, একটি প্রস্তাবনা শিশু কিশোরদের নানা ইভেন্ট নিয়ে ইপিএস কমিউনিটি ফ্রান্সের স্বাধীনতা দিবস পালন

বহুমাত্রিক চাপে ফরাসী প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁ

  • আপডেট সময় ০৩:৩০:০৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৮ নভেম্বর ২০১৮
  • ৭৩৫ বার পড়া হয়েছে

Warning: Attempt to read property "post_excerpt" on null in /home/u305720254/domains/francedorpan.com/public_html/wp-content/themes/newspaper-pro/template-parts/common/single_two.php on line 117

গত নির্বাচনে নজির বিহীন চমক দেখিয়ে ক্ষমতায় আসা ফ্রান্সের তরুণ প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ দুই বছরের মাথায় প্রচন্ড চাপের মুখে পড়েছেন। একদিকে নানামুখী সংস্কার নিয়ে বিরুধী রাজনৈতিক দল ও শ্রমিক সংগঠনের আন্দোলন, বেকারত্ব বাড়ছে, ধারাবাহিকভাবে জনপ্রিয়তা হারাচ্ছেন অন্যদিকে নানামুখী বিতর্ক। বেনালা বিতর্কের রেশ কাটতে না কাটতে শুরু হয়েছে নতুন বিতর্ক maréchal Pétain। 
আগামী রবিবার প্রথম বিশ্বযুদ্ধের বীর সেনাদের স্মরণ অনুষ্টানে maréchal Pétain কে সম্মানিত করাকে কেন্দ্র করে ফ্রান্স জূড়ে চলছে তুমুল বিতর্ক ।
maréchal Pétain প্রথম বিশ্বযুদ্ধে ফ্রান্সের হয়ে অসাধারণ বীরত্ব দেখিয়েছিলেন। ফরাসীরা তখন তাকে জাতীয় বীরের মর্যাদা দেয়। তবে সেই maréchal Pétain দ্বিতীয় বিশ্ব যুদ্ধে নাৎসীদের সহায়তা করেন বলে অভিযোগ।  এজন্যই তাকে সম্মান জানাতে এই বিতর্ক। বিশেষত ফ্রান্সের ইহুদীরা কোনভাবেই ম্যাক্রোঁর এ পদক্ষেপকে মেনে নিতে পারছে না।
অবশ্য ম্যক্রোঁ একে একটি নয় নিম্ন মানের বিতর্ক বলে অভিহিত করেছেন।
এছাড়া গ্যাস,বিদ্যুৎ ও জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধিতে সাধারণ জনগণও মারাত্মক অসন্তু। ক্ষমতায় আসার সময় দেয়া বিভিন্ন চটকদার প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নেও রয়েছে গড়িমসি।
এসব বিতর্কের বাইরেও আছে সামনে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট নির্বাচন।  সেখানেও সর্বশেষ জরীপে ম্যাক্রোঁর দলের জনপ্রিয়তা কমার আভাস পাওয়া যাচ্ছে। বরং কট্টরপন্থী মারিন ল্য পেনের নতুন দলের ভাল করার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে।
উপরন্তু রয়েছে আন্তর্জাতিক ইস্যু। ব্রেক্সিটকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিনের মিত্র ব্রিটেনের সাথে একধরনের তিক্ততার সম্পর্ক তৈরি হয়েছে। সাবেক প্রধানমন্ত্রী মিশেল বার্নার্ড একে সাম্প্রতিক সময়ের সবচেয়ে খারাপ সম্পর্ক বলে মত দিয়েছেন। এছাড়া রয়েছে ট্রাম্পের নীতি যা ন্যাটোসহ ইউরোপীয় মিত্রদের অস্বস্তির মাঝে ফেলে দিয়েছে।
এসব বিবেচনায় দুই বছর যেতে না যেতে তরুন এ প্রেসিডেন্টের কপালে ভাঁজ কেবল লম্বা হচ্ছে। দেখা যাক এ নানামুখী চাপ কিচাবে সামাল দেন ম্যাক্রোঁ।

ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

লক ডাউন পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবেলায় ফ্রান্সে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি

যুক্তরাজ্যে করোনার মধ্যেই শিশুদের মাঝে নতুন রোগের হানা

তরুণ উদ্যোক্তা মাসুদ মিয়া-আয়ুব হাসানের যৌথ প্রয়াসের প্রতিষ্ঠান পিংক সিটি

বহুমাত্রিক চাপে ফরাসী প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁ

আপডেট সময় ০৩:৩০:০৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৮ নভেম্বর ২০১৮

গত নির্বাচনে নজির বিহীন চমক দেখিয়ে ক্ষমতায় আসা ফ্রান্সের তরুণ প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ দুই বছরের মাথায় প্রচন্ড চাপের মুখে পড়েছেন। একদিকে নানামুখী সংস্কার নিয়ে বিরুধী রাজনৈতিক দল ও শ্রমিক সংগঠনের আন্দোলন, বেকারত্ব বাড়ছে, ধারাবাহিকভাবে জনপ্রিয়তা হারাচ্ছেন অন্যদিকে নানামুখী বিতর্ক। বেনালা বিতর্কের রেশ কাটতে না কাটতে শুরু হয়েছে নতুন বিতর্ক maréchal Pétain। 
আগামী রবিবার প্রথম বিশ্বযুদ্ধের বীর সেনাদের স্মরণ অনুষ্টানে maréchal Pétain কে সম্মানিত করাকে কেন্দ্র করে ফ্রান্স জূড়ে চলছে তুমুল বিতর্ক ।
maréchal Pétain প্রথম বিশ্বযুদ্ধে ফ্রান্সের হয়ে অসাধারণ বীরত্ব দেখিয়েছিলেন। ফরাসীরা তখন তাকে জাতীয় বীরের মর্যাদা দেয়। তবে সেই maréchal Pétain দ্বিতীয় বিশ্ব যুদ্ধে নাৎসীদের সহায়তা করেন বলে অভিযোগ।  এজন্যই তাকে সম্মান জানাতে এই বিতর্ক। বিশেষত ফ্রান্সের ইহুদীরা কোনভাবেই ম্যাক্রোঁর এ পদক্ষেপকে মেনে নিতে পারছে না।
অবশ্য ম্যক্রোঁ একে একটি নয় নিম্ন মানের বিতর্ক বলে অভিহিত করেছেন।
এছাড়া গ্যাস,বিদ্যুৎ ও জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধিতে সাধারণ জনগণও মারাত্মক অসন্তু। ক্ষমতায় আসার সময় দেয়া বিভিন্ন চটকদার প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নেও রয়েছে গড়িমসি।
এসব বিতর্কের বাইরেও আছে সামনে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট নির্বাচন।  সেখানেও সর্বশেষ জরীপে ম্যাক্রোঁর দলের জনপ্রিয়তা কমার আভাস পাওয়া যাচ্ছে। বরং কট্টরপন্থী মারিন ল্য পেনের নতুন দলের ভাল করার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে।
উপরন্তু রয়েছে আন্তর্জাতিক ইস্যু। ব্রেক্সিটকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিনের মিত্র ব্রিটেনের সাথে একধরনের তিক্ততার সম্পর্ক তৈরি হয়েছে। সাবেক প্রধানমন্ত্রী মিশেল বার্নার্ড একে সাম্প্রতিক সময়ের সবচেয়ে খারাপ সম্পর্ক বলে মত দিয়েছেন। এছাড়া রয়েছে ট্রাম্পের নীতি যা ন্যাটোসহ ইউরোপীয় মিত্রদের অস্বস্তির মাঝে ফেলে দিয়েছে।
এসব বিবেচনায় দুই বছর যেতে না যেতে তরুন এ প্রেসিডেন্টের কপালে ভাঁজ কেবল লম্বা হচ্ছে। দেখা যাক এ নানামুখী চাপ কিচাবে সামাল দেন ম্যাক্রোঁ।