ঢাকা ০৯:১৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
প্যারিসে Point d’Aide – এইড পয়েন্ট এর নতুন অফিসের উদ্বোধন তরুণ সাহিত্যিক সাদাত হোসাইনকে প্যারিসে সংবর্ধনা দিলো ফ্রান্সপ্রবাসী বাংলাদেশীরা গাজীপুর জেলা সমিতি,ফ্রান্স’র দ্বি বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত : ফারুক খান সভাপতি, জুয়েল সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত কেবল উপবাসের নামই সিয়াম নয়, প্রকৃত মানুষ হওয়ার শিক্ষাই সিয়াম ফ্রান্সে একটি সর্বজন গ্রহণযোগ্য ‘বাংলাদেশ সমিতি’র তাগিদ, একটি প্রস্তাবনা শিশু কিশোরদের নানা ইভেন্ট নিয়ে ইপিএস কমিউনিটি ফ্রান্সের স্বাধীনতা দিবস পালন জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন ফ্রান্স’র নতুন কমিটির পরিচিতি ও ইফতার প্যারিসে ‘নকশী বাংলা ফাউন্ডেশন সম্মাননা’ পেলেন ফ্রান্স দর্পণ নির্বাহী সম্পাদক ফেরদৌস করিম আখঞ্জী নানা আয়োজনে প্যারিসে সাফের আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালন ‘পাঠশালা’ – ফরাসী ভাষা শিক্ষার স্কুল উদ্বোধন

বাংলাদেশী উদ্যোক্তার ভিন্ন ধারার ফরাসী রেস্টুরেন্ট ‘ L’Heure Bleue’.

  • আপডেট সময় ১২:১৩:০১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০
  • ১৭০ বার পড়া হয়েছে

Warning: Attempt to read property "post_excerpt" on null in /home/u305720254/domains/francedorpan.com/public_html/wp-content/themes/newspaper-pro/template-parts/common/single_two.php on line 117

নজমুল কবিরঃঃ রেস্টুরেন্টের লোকেশানটা গুগলের সহায়তায় হয়তো খুঁজে পাবেন। কিন্তু আপনি একেবারে ‘অবাক এবং হতাশ’ – এই দুই অনুভূতি নিয়ে দ্বিধান্বিত হয়ে পরবেন। এরকম একটি নির্জন, চিপা গলির মধ্যে একটি ফরাসী রেস্টুরেন্ট কিভাবে সারভাইভ করে! অসম্ভব।

রেস্টুরেন্টের একটি মেন্যু

হ্যা, এই অসম্ভবকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়ে সম্ভব করেছেন রেস্টুরেন্টের স্বত্তাধিকারী শাহাদাত হোসেন সাইফুল। একজন ফরাসী মালিকের থেকে দায়িত্বটি নিয়ে অনেক চ্যালেঞ্জ এবং আর্থিক ঝুঁকি মাথায় নিয়ে এগিয়ে গেছেন শাহাদাত হোসেন সাইফুল। নিজেই তিনি একজন শেফ। অতএব আত্মবিশ্বাস তার থাকাটাই স্বাভাবিক।

এখন প্রশ্ন হলো, কী এমন তার বৈশিষ্ট্য যা দিয়ে আলাদা করে তার রেস্টুরেন্টটিকে চিনতে হয়। তিনি আলাপ চারিতায় বলছিলেন, ‘আমার রেস্টুরেন্টে গত ছয় বছর যাবত প্রতি মাসে একটা Exposition করি, এক মাসের জন্য। এখানে আর্টিস্টরা তার শিল্পকর্ম প্রদর্শনী করে। এই প্রদর্শণীতে আর্টিস্ট তার শিল্পকর্ম প্রদর্শন ও বিক্রী করেন। এলাকার লোকজন এখানে এই প্রদর্শনী দেখতে আসে, শিল্পীর সাথে সরাসরি কথা বলে, শিল্পসৃষ্টির নানাদিক নিয়ে কথা বলে। পছন্দ হলে শিল্পকর্ম কিনে নেয়।

একই সাথে শিল্পানুরাগীরা এই রেস্টুরেন্টে রসনা তৃপ্ত করে। গভীররাত পর্যন্ত তারা খাবার টেবিল সরব রাখে। এই যে এই রেস্টুরেন্টে শিল্পকলা প্রদর্শনীর আয়োজন – এটি ফরাসী কাস্টমারদের এখানে আসতে প্রলুব্ধ করে। পাশাপাশি এই এলাকায় বসবাসকারী ফরাসীরা এই রেস্টুরেন্টের খাবার টেবিলকে নিজেদের বাসার ডায়নিং স্পেস বানিয়ে নিয়েছে। মূলতঃ এই দুইয়ের সংমিশ্রণই এই রেস্টরেন্টটিকে আলাদা বৈশিষ্ট্য দিয়েছে। ভিন্নমাত্রার এক আবেদন তৈরি করতে পেরেছে বলে আমি মনে করি।’

বর্তমানে এই রেস্টুরেন্টে একটি প্রদর্শনী চলছে। কলকাতার অভিজিৎ বাবুর একক চিত্র প্রদর্শনী। জানালেন শাহাদাত হোসেন সাইফুল।

মিঃ সাইফুল দাবি করেন, এই রেস্টুরেন্টের খুব ভালো রেপুটেশন আছে Google এবং TripAdvisor তে। ফলে সব আর্টিস্ট ভালো একটা পরিচিতি পায় ফ্রান্স সোসাইটিতে। মিঃ সাইফুল আরো জানান, আর্টিস্টদের সাহায্য করতে আমার ভালো লাগে।

শাহাদাত হোসেন সাইফুল জানান, এই দেশ শিল্প, সাহিত্য সংস্কৃতির দেশ। ফরাসীরা শিল্পমনস্ক। তারা শিল্প এবং শিল্পীদের কদর করতে জানে। তাই কোন শিল্পী যদি তার শিল্পকর্ম নিয়ে প্রদর্শনী করতে চান তারা যেন যোগাযোগ করেন। এখানে গ্যালারীর কোন ভাড়া নেই, শিল্পীর শিল্প বিক্রীর অর্থও শিল্পীর নিজের।

অতএব, যারা শিল্পী আছেন তারা যোগাযোগ করতে পারেন। ফ্রান্সপ্রবাসী বাংলাদেশীদের ভেতর যারা শিল্পচর্চা করছেন, আপনারা আপনাদের শিল্পকর্ম প্রদর্শনী করতে চাইলে যোগাযোগ করতে পারেন। পেইন্টিং, ফটোগ্রাফি, হস্ত ও কারুশিল্প ইত্যাদি যে মাধ্যমেই আপনি কাজ করে থাকেন তারা এই সুযোগ নিতে পারেন।

আর শুধু শিল্পী আর শিল্পানুরাগীদের আহবান করছি তা নয়, সাইফুল ভাইয়ের রেসিপি! আমরা যারা শিল্পের প্যাঁচঘোচ বুঝিনা তারা অন্ততঃ খাবারের স্বাদটাতো বুঝি! চলে যেতে পারেন একদিন।

Restaurant l’heure bleue 57 rue Arthur Rozier 75019.

Call Shahadat ou Cédric où Axel 0142459655।

ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

লক ডাউন পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবেলায় ফ্রান্সে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি

যুক্তরাজ্যে করোনার মধ্যেই শিশুদের মাঝে নতুন রোগের হানা

প্যারিসে Point d’Aide – এইড পয়েন্ট এর নতুন অফিসের উদ্বোধন

বাংলাদেশী উদ্যোক্তার ভিন্ন ধারার ফরাসী রেস্টুরেন্ট ‘ L’Heure Bleue’.

আপডেট সময় ১২:১৩:০১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০

নজমুল কবিরঃঃ রেস্টুরেন্টের লোকেশানটা গুগলের সহায়তায় হয়তো খুঁজে পাবেন। কিন্তু আপনি একেবারে ‘অবাক এবং হতাশ’ – এই দুই অনুভূতি নিয়ে দ্বিধান্বিত হয়ে পরবেন। এরকম একটি নির্জন, চিপা গলির মধ্যে একটি ফরাসী রেস্টুরেন্ট কিভাবে সারভাইভ করে! অসম্ভব।

রেস্টুরেন্টের একটি মেন্যু

হ্যা, এই অসম্ভবকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়ে সম্ভব করেছেন রেস্টুরেন্টের স্বত্তাধিকারী শাহাদাত হোসেন সাইফুল। একজন ফরাসী মালিকের থেকে দায়িত্বটি নিয়ে অনেক চ্যালেঞ্জ এবং আর্থিক ঝুঁকি মাথায় নিয়ে এগিয়ে গেছেন শাহাদাত হোসেন সাইফুল। নিজেই তিনি একজন শেফ। অতএব আত্মবিশ্বাস তার থাকাটাই স্বাভাবিক।

এখন প্রশ্ন হলো, কী এমন তার বৈশিষ্ট্য যা দিয়ে আলাদা করে তার রেস্টুরেন্টটিকে চিনতে হয়। তিনি আলাপ চারিতায় বলছিলেন, ‘আমার রেস্টুরেন্টে গত ছয় বছর যাবত প্রতি মাসে একটা Exposition করি, এক মাসের জন্য। এখানে আর্টিস্টরা তার শিল্পকর্ম প্রদর্শনী করে। এই প্রদর্শণীতে আর্টিস্ট তার শিল্পকর্ম প্রদর্শন ও বিক্রী করেন। এলাকার লোকজন এখানে এই প্রদর্শনী দেখতে আসে, শিল্পীর সাথে সরাসরি কথা বলে, শিল্পসৃষ্টির নানাদিক নিয়ে কথা বলে। পছন্দ হলে শিল্পকর্ম কিনে নেয়।

একই সাথে শিল্পানুরাগীরা এই রেস্টুরেন্টে রসনা তৃপ্ত করে। গভীররাত পর্যন্ত তারা খাবার টেবিল সরব রাখে। এই যে এই রেস্টুরেন্টে শিল্পকলা প্রদর্শনীর আয়োজন – এটি ফরাসী কাস্টমারদের এখানে আসতে প্রলুব্ধ করে। পাশাপাশি এই এলাকায় বসবাসকারী ফরাসীরা এই রেস্টুরেন্টের খাবার টেবিলকে নিজেদের বাসার ডায়নিং স্পেস বানিয়ে নিয়েছে। মূলতঃ এই দুইয়ের সংমিশ্রণই এই রেস্টরেন্টটিকে আলাদা বৈশিষ্ট্য দিয়েছে। ভিন্নমাত্রার এক আবেদন তৈরি করতে পেরেছে বলে আমি মনে করি।’

বর্তমানে এই রেস্টুরেন্টে একটি প্রদর্শনী চলছে। কলকাতার অভিজিৎ বাবুর একক চিত্র প্রদর্শনী। জানালেন শাহাদাত হোসেন সাইফুল।

মিঃ সাইফুল দাবি করেন, এই রেস্টুরেন্টের খুব ভালো রেপুটেশন আছে Google এবং TripAdvisor তে। ফলে সব আর্টিস্ট ভালো একটা পরিচিতি পায় ফ্রান্স সোসাইটিতে। মিঃ সাইফুল আরো জানান, আর্টিস্টদের সাহায্য করতে আমার ভালো লাগে।

শাহাদাত হোসেন সাইফুল জানান, এই দেশ শিল্প, সাহিত্য সংস্কৃতির দেশ। ফরাসীরা শিল্পমনস্ক। তারা শিল্প এবং শিল্পীদের কদর করতে জানে। তাই কোন শিল্পী যদি তার শিল্পকর্ম নিয়ে প্রদর্শনী করতে চান তারা যেন যোগাযোগ করেন। এখানে গ্যালারীর কোন ভাড়া নেই, শিল্পীর শিল্প বিক্রীর অর্থও শিল্পীর নিজের।

অতএব, যারা শিল্পী আছেন তারা যোগাযোগ করতে পারেন। ফ্রান্সপ্রবাসী বাংলাদেশীদের ভেতর যারা শিল্পচর্চা করছেন, আপনারা আপনাদের শিল্পকর্ম প্রদর্শনী করতে চাইলে যোগাযোগ করতে পারেন। পেইন্টিং, ফটোগ্রাফি, হস্ত ও কারুশিল্প ইত্যাদি যে মাধ্যমেই আপনি কাজ করে থাকেন তারা এই সুযোগ নিতে পারেন।

আর শুধু শিল্পী আর শিল্পানুরাগীদের আহবান করছি তা নয়, সাইফুল ভাইয়ের রেসিপি! আমরা যারা শিল্পের প্যাঁচঘোচ বুঝিনা তারা অন্ততঃ খাবারের স্বাদটাতো বুঝি! চলে যেতে পারেন একদিন।

Restaurant l’heure bleue 57 rue Arthur Rozier 75019.

Call Shahadat ou Cédric où Axel 0142459655।