ঢাকা ০১:১৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
তরুণ উদ্যোক্তা মাসুদ মিয়া-আয়ুব হাসানের যৌথ প্রয়াসের প্রতিষ্ঠান পিংক সিটি নিউ স্টার ফুটবল ক্লাব রতনপুরের সহসভাপতি সাইফুল ইসলাম সংবর্ধিত বালাগঞ্জে শান্তিপুর্ণভাবে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন সম্পন্ন : চমক দেখিয়ে আনহার মিয়া চেয়ারম্যান নির্বাচিত ফ্রান্সে বাংলাদেশি অভিবাসীদের জীবনমান উন্নয়নে ফরাসি জাতীয়তা বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত প্যারিসে Point d’Aide – এইড পয়েন্ট এর নতুন অফিসের উদ্বোধন তরুণ সাহিত্যিক সাদাত হোসাইনকে প্যারিসে সংবর্ধনা দিলো ফ্রান্সপ্রবাসী বাংলাদেশীরা গাজীপুর জেলা সমিতি,ফ্রান্স’র দ্বি বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত : ফারুক খান সভাপতি, জুয়েল সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত কেবল উপবাসের নামই সিয়াম নয়, প্রকৃত মানুষ হওয়ার শিক্ষাই সিয়াম ফ্রান্সে একটি সর্বজন গ্রহণযোগ্য ‘বাংলাদেশ সমিতি’র তাগিদ, একটি প্রস্তাবনা শিশু কিশোরদের নানা ইভেন্ট নিয়ে ইপিএস কমিউনিটি ফ্রান্সের স্বাধীনতা দিবস পালন

যুক্তরাজ্যে আট নবজাতককে হত্যার অভিযোগে নার্স গ্রেফতার

  • আপডেট সময় ০৪:২৮:০৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩ জুলাই ২০১৮
  • ১৩৭ বার পড়া হয়েছে

আট শিশুকে হত্যা ও আরও ছয় নবজাতককে হত্যা চেষ্টার সন্দেহভাজন হিসেবে যুক্তরাজ্যের এক নার্সকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। উত্তর ইংল্যান্ডের একটি হাসপাতালের নবজাতক ইউনিটে শিশু মৃত্যুর বিষয়টি তদন্ত করার পর মঙ্গলবার ওই নারীকে গ্রেফতার করা হয়। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ খবর জানিয়েছে।

যুক্তরাজ্যের উত্তর ইংল্যান্ডের  চেস্টার হাসপাতালের নবজাতক ইউনিটে ২০১৫ সালের মার্চ মাস থেকে ২০১৬ সালের জুলাই পর্যন্ত ১৭ শিশুর মৃত্যু হয়। তাদের মধ্যে ১৫ জনেরই মারাত্মক কোনও অসুখ ছিল না। বিষয়টি তদন্ত শেষ করার পর ওই নার্সকে গ্রেফতার করা হয়।

গোয়েন্দা পরিদর্শক পল হুঘেস এক বিবৃতিতে বলেছেন, এটা ‍খুবই জটিল ও খুবই স্পর্শকাতর তদন্ত। আপনারা বুঝতে পারবেন, এই শিশুদের মৃত্যুর কারণ খুঁজে বের করতে আমরা বিস্তারিতভাবে সম্ভাব্য সবকিছু করেছি। এটা নিশ্চিত করা আমাদের প্রয়োজন ছিল।

গত বছরের মে মাসে তদন্ত শুরুর পর মঙ্গলবার ওই নারীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তবে তার পরিচয় প্রকাশ করা হয়নি। তাকে সাধারণভাবে একজন স্বাস্থ্যকর্মী হিসেবে অভিহিত করা হয়েছে। হুঘেস বলেন, তদন্ত কার্যক্রম এখনও চালু আছে। তিনি বলেন, এটা ওই শিশুদের পরিবারের জন্য চরম কঠিক সময়। এটা মনে রাখা জরুরি যে,  শোকার্ত পরিবারগুলো তাদের শিশুদের কী হয়েছিল তা জানতে চায়।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলেছে, তারা গোয়েন্দাদের তদন্ত কার্যক্রমে সহায়তা করেছে। তাদের শিশু ইউনিটকে বর্তমান অবস্থায় নিরাপদ হিসেবে চালু রাখার ব্যাপারেও আশাবাদী। হাসপাতালের চিকিৎসা পরিচালক ইয়ান হারভেই বলেন, আমরা কম গুরুত্ব নিয়ে পুলিশকে বিষয়টি তদন্ত করতে বলিনি। এখানে আসলে কী হয়েছিল তা বোঝার জন্য যা যা করতে পারি আমরা তাই করবো।

ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

লক ডাউন পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবেলায় ফ্রান্সে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি

যুক্তরাজ্যে করোনার মধ্যেই শিশুদের মাঝে নতুন রোগের হানা

তরুণ উদ্যোক্তা মাসুদ মিয়া-আয়ুব হাসানের যৌথ প্রয়াসের প্রতিষ্ঠান পিংক সিটি

যুক্তরাজ্যে আট নবজাতককে হত্যার অভিযোগে নার্স গ্রেফতার

আপডেট সময় ০৪:২৮:০৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩ জুলাই ২০১৮

আট শিশুকে হত্যা ও আরও ছয় নবজাতককে হত্যা চেষ্টার সন্দেহভাজন হিসেবে যুক্তরাজ্যের এক নার্সকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। উত্তর ইংল্যান্ডের একটি হাসপাতালের নবজাতক ইউনিটে শিশু মৃত্যুর বিষয়টি তদন্ত করার পর মঙ্গলবার ওই নারীকে গ্রেফতার করা হয়। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ খবর জানিয়েছে।

যুক্তরাজ্যের উত্তর ইংল্যান্ডের  চেস্টার হাসপাতালের নবজাতক ইউনিটে ২০১৫ সালের মার্চ মাস থেকে ২০১৬ সালের জুলাই পর্যন্ত ১৭ শিশুর মৃত্যু হয়। তাদের মধ্যে ১৫ জনেরই মারাত্মক কোনও অসুখ ছিল না। বিষয়টি তদন্ত শেষ করার পর ওই নার্সকে গ্রেফতার করা হয়।

গোয়েন্দা পরিদর্শক পল হুঘেস এক বিবৃতিতে বলেছেন, এটা ‍খুবই জটিল ও খুবই স্পর্শকাতর তদন্ত। আপনারা বুঝতে পারবেন, এই শিশুদের মৃত্যুর কারণ খুঁজে বের করতে আমরা বিস্তারিতভাবে সম্ভাব্য সবকিছু করেছি। এটা নিশ্চিত করা আমাদের প্রয়োজন ছিল।

গত বছরের মে মাসে তদন্ত শুরুর পর মঙ্গলবার ওই নারীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তবে তার পরিচয় প্রকাশ করা হয়নি। তাকে সাধারণভাবে একজন স্বাস্থ্যকর্মী হিসেবে অভিহিত করা হয়েছে। হুঘেস বলেন, তদন্ত কার্যক্রম এখনও চালু আছে। তিনি বলেন, এটা ওই শিশুদের পরিবারের জন্য চরম কঠিক সময়। এটা মনে রাখা জরুরি যে,  শোকার্ত পরিবারগুলো তাদের শিশুদের কী হয়েছিল তা জানতে চায়।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলেছে, তারা গোয়েন্দাদের তদন্ত কার্যক্রমে সহায়তা করেছে। তাদের শিশু ইউনিটকে বর্তমান অবস্থায় নিরাপদ হিসেবে চালু রাখার ব্যাপারেও আশাবাদী। হাসপাতালের চিকিৎসা পরিচালক ইয়ান হারভেই বলেন, আমরা কম গুরুত্ব নিয়ে পুলিশকে বিষয়টি তদন্ত করতে বলিনি। এখানে আসলে কী হয়েছিল তা বোঝার জন্য যা যা করতে পারি আমরা তাই করবো।