ঢাকা ১১:৪৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
তরুণ উদ্যোক্তা মাসুদ মিয়া-আয়ুব হাসানের যৌথ প্রয়াসের প্রতিষ্ঠান পিংক সিটি নিউ স্টার ফুটবল ক্লাব রতনপুরের সহসভাপতি সাইফুল ইসলাম সংবর্ধিত বালাগঞ্জে শান্তিপুর্ণভাবে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন সম্পন্ন : চমক দেখিয়ে আনহার মিয়া চেয়ারম্যান নির্বাচিত ফ্রান্সে বাংলাদেশি অভিবাসীদের জীবনমান উন্নয়নে ফরাসি জাতীয়তা বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত প্যারিসে Point d’Aide – এইড পয়েন্ট এর নতুন অফিসের উদ্বোধন তরুণ সাহিত্যিক সাদাত হোসাইনকে প্যারিসে সংবর্ধনা দিলো ফ্রান্সপ্রবাসী বাংলাদেশীরা গাজীপুর জেলা সমিতি,ফ্রান্স’র দ্বি বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত : ফারুক খান সভাপতি, জুয়েল সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত কেবল উপবাসের নামই সিয়াম নয়, প্রকৃত মানুষ হওয়ার শিক্ষাই সিয়াম ফ্রান্সে একটি সর্বজন গ্রহণযোগ্য ‘বাংলাদেশ সমিতি’র তাগিদ, একটি প্রস্তাবনা শিশু কিশোরদের নানা ইভেন্ট নিয়ে ইপিএস কমিউনিটি ফ্রান্সের স্বাধীনতা দিবস পালন

৬০০ শরণার্থীকে সাগরে ফিরিয়ে দিয়েছে ইতালি

  • আপডেট সময় ০৯:০৭:৪৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১১ জুন ২০১৮
  • ১৩৪০ বার পড়া হয়েছে

অভিবাসনপ্রত্যাশী ৬ শতাধিক শরণার্থীকে সাগরে ফিরিয়ে দিয়েছে ইতালি। এসব শরণার্থীরা ভূ-মধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ইতালি উপকূলে পৌছায়। কিন্তু ইতালি তাদের সব বন্দর বন্ধ করে দেয়ায় বিপাকে পড়ে তারা। ইতালির নতুন সরকার ঘোষণা দিয়েছে, এখন থেকে তারা আর কোন শরণার্থীবাহী নৌকাকে তাদের বন্দরে ভিড়তে দেবে না। এ খবর দিয়েছে আল জাজিরা।
খবরে বলা হয়, ইতালির বন্দরে নোঙর করতে ব্যর্থ হয়ে ঝুঁকিপূর্ণভাবে সাগরে ফিরে যায় ৬ শতাধিক শরণার্থীবাহী নৌকা। ইতালির সাম্পতিক নির্বাচনে কট্টরপন্থীরা ক্ষমতায় এসেছে। নির্বাচনের সময়ই দলটি ঘোষণা দেয়, সরকার গঠন করলে তারা অবৈধ অভিবাসনের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেবে। শরণার্থীদের সাগরে ফিরিয়ে দেয়ার মাধ্যমে সরকার সেই নীতির বাস্তবায়ন শুরু করলো। অভিবাসন প্রত্যাশীদের জন্য বন্দর খুলে না দিয়ে ইতালির সরকার তাদেরকে আশ্রয় দেয়ার জন্য ভূ-মধ্য সাগরের তীরবর্তী আরেক দেশ মাল্টার প্রতি আহবান জানিয়েছে। মাল্টাকে শরণার্থীদের জন্য দ্বার খুলে দিতে বলেছে। কিন্তু ইতালির এই আহবান প্রত্যাখান করেছে মাল্টা। দেশটি বলেছে, শরণার্থীদের আশ্রয় বা উদ্ধারের কাজে তাদের কিছুই করার নেই। রোববার সকালে বিপজ্জনকভাবে সাগরে ভাসমান এসব শরণার্থীদের উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে এসওএস মেডিটারেনি নামের একটি ত্রাণ সংস্থা। এক টুইটার বার্তায় সংস্থাটি বলেছে, তাদের উদ্ধারকারী জাহাজ ‘অ্যাকুয়ারিয়াস’ সাগরে ভাসমান ৬২৯ শরণার্থীকে উদ্ধার করেছে। এদের মধ্যে ১১ শিশু ও সাত গর্ভবতী নারীও রয়েছে।
এদিকে, ইতালির উপ-প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মাত্তেও স্যালভিনি রোববার টুইটারে লেখেন, ‘ ইতালি এখন থেকে মানব পাচার ও অবৈধ অভিবাসনের ব্যবসাকে ‘না’ বলা শুরু করেছে। আমার উদ্দেশ্য হলো, ওইসব শিশুদের জন্য আফ্রিকায় ও আমাদের শিশুদের জন্য ইতালিতে শান্তিপূর্ণ জীবনের ব্যবস্থা করা।’ তিনি ‘ইতালিয়ান ফার্স্ট’ নীতি অনুসরণ করার ঘোষণা দেন। পাশাপাশি ইতালিতে অবস্থানরত হাজার হাজার অবৈধ অভিবাসীকে ফেরত পাঠানোর ঘোষণা দেন।
উল্লেখ্য, গত পাঁচ বছরে আফ্রিকা থেকে ৬ লাখেরও বেশি মানুষ ইতালিতে শরণার্থী হয়ে এসেছে। তবে অভিবাসনবিরোধী নতুন সরকার ক্ষমতা নেয়ার পর শরণার্থী প্রবেশের পরিমাণ কমে গেছে।

ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

লক ডাউন পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবেলায় ফ্রান্সে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি

যুক্তরাজ্যে করোনার মধ্যেই শিশুদের মাঝে নতুন রোগের হানা

তরুণ উদ্যোক্তা মাসুদ মিয়া-আয়ুব হাসানের যৌথ প্রয়াসের প্রতিষ্ঠান পিংক সিটি

৬০০ শরণার্থীকে সাগরে ফিরিয়ে দিয়েছে ইতালি

আপডেট সময় ০৯:০৭:৪৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১১ জুন ২০১৮

অভিবাসনপ্রত্যাশী ৬ শতাধিক শরণার্থীকে সাগরে ফিরিয়ে দিয়েছে ইতালি। এসব শরণার্থীরা ভূ-মধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ইতালি উপকূলে পৌছায়। কিন্তু ইতালি তাদের সব বন্দর বন্ধ করে দেয়ায় বিপাকে পড়ে তারা। ইতালির নতুন সরকার ঘোষণা দিয়েছে, এখন থেকে তারা আর কোন শরণার্থীবাহী নৌকাকে তাদের বন্দরে ভিড়তে দেবে না। এ খবর দিয়েছে আল জাজিরা।
খবরে বলা হয়, ইতালির বন্দরে নোঙর করতে ব্যর্থ হয়ে ঝুঁকিপূর্ণভাবে সাগরে ফিরে যায় ৬ শতাধিক শরণার্থীবাহী নৌকা। ইতালির সাম্পতিক নির্বাচনে কট্টরপন্থীরা ক্ষমতায় এসেছে। নির্বাচনের সময়ই দলটি ঘোষণা দেয়, সরকার গঠন করলে তারা অবৈধ অভিবাসনের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেবে। শরণার্থীদের সাগরে ফিরিয়ে দেয়ার মাধ্যমে সরকার সেই নীতির বাস্তবায়ন শুরু করলো। অভিবাসন প্রত্যাশীদের জন্য বন্দর খুলে না দিয়ে ইতালির সরকার তাদেরকে আশ্রয় দেয়ার জন্য ভূ-মধ্য সাগরের তীরবর্তী আরেক দেশ মাল্টার প্রতি আহবান জানিয়েছে। মাল্টাকে শরণার্থীদের জন্য দ্বার খুলে দিতে বলেছে। কিন্তু ইতালির এই আহবান প্রত্যাখান করেছে মাল্টা। দেশটি বলেছে, শরণার্থীদের আশ্রয় বা উদ্ধারের কাজে তাদের কিছুই করার নেই। রোববার সকালে বিপজ্জনকভাবে সাগরে ভাসমান এসব শরণার্থীদের উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে এসওএস মেডিটারেনি নামের একটি ত্রাণ সংস্থা। এক টুইটার বার্তায় সংস্থাটি বলেছে, তাদের উদ্ধারকারী জাহাজ ‘অ্যাকুয়ারিয়াস’ সাগরে ভাসমান ৬২৯ শরণার্থীকে উদ্ধার করেছে। এদের মধ্যে ১১ শিশু ও সাত গর্ভবতী নারীও রয়েছে।
এদিকে, ইতালির উপ-প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মাত্তেও স্যালভিনি রোববার টুইটারে লেখেন, ‘ ইতালি এখন থেকে মানব পাচার ও অবৈধ অভিবাসনের ব্যবসাকে ‘না’ বলা শুরু করেছে। আমার উদ্দেশ্য হলো, ওইসব শিশুদের জন্য আফ্রিকায় ও আমাদের শিশুদের জন্য ইতালিতে শান্তিপূর্ণ জীবনের ব্যবস্থা করা।’ তিনি ‘ইতালিয়ান ফার্স্ট’ নীতি অনুসরণ করার ঘোষণা দেন। পাশাপাশি ইতালিতে অবস্থানরত হাজার হাজার অবৈধ অভিবাসীকে ফেরত পাঠানোর ঘোষণা দেন।
উল্লেখ্য, গত পাঁচ বছরে আফ্রিকা থেকে ৬ লাখেরও বেশি মানুষ ইতালিতে শরণার্থী হয়ে এসেছে। তবে অভিবাসনবিরোধী নতুন সরকার ক্ষমতা নেয়ার পর শরণার্থী প্রবেশের পরিমাণ কমে গেছে।