ঢাকা ১২:২১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
তরুণ উদ্যোক্তা মাসুদ মিয়া-আয়ুব হাসানের যৌথ প্রয়াসের প্রতিষ্ঠান পিংক সিটি নিউ স্টার ফুটবল ক্লাব রতনপুরের সহসভাপতি সাইফুল ইসলাম সংবর্ধিত বালাগঞ্জে শান্তিপুর্ণভাবে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন সম্পন্ন : চমক দেখিয়ে আনহার মিয়া চেয়ারম্যান নির্বাচিত ফ্রান্সে বাংলাদেশি অভিবাসীদের জীবনমান উন্নয়নে ফরাসি জাতীয়তা বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত প্যারিসে Point d’Aide – এইড পয়েন্ট এর নতুন অফিসের উদ্বোধন তরুণ সাহিত্যিক সাদাত হোসাইনকে প্যারিসে সংবর্ধনা দিলো ফ্রান্সপ্রবাসী বাংলাদেশীরা গাজীপুর জেলা সমিতি,ফ্রান্স’র দ্বি বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত : ফারুক খান সভাপতি, জুয়েল সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত কেবল উপবাসের নামই সিয়াম নয়, প্রকৃত মানুষ হওয়ার শিক্ষাই সিয়াম ফ্রান্সে একটি সর্বজন গ্রহণযোগ্য ‘বাংলাদেশ সমিতি’র তাগিদ, একটি প্রস্তাবনা শিশু কিশোরদের নানা ইভেন্ট নিয়ে ইপিএস কমিউনিটি ফ্রান্সের স্বাধীনতা দিবস পালন

সামাজিক সংস্থা ‘সাফ’ এর উদ্যোগে প্যারিসে ‘ঈদ বাণিজ্য মেলা-২০২৩’

  • আপডেট সময় ১০:২১:০১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৩
  • ৩৩৯ বার পড়া হয়েছে

প্যারিসের ঐতিহাসিক রিপাবলিক চত্তরে বাঙালী উদ্যোক্তাদের পসার বসেছিলো রোববার (১৬ এপ্রিল)। সামাজিক সংগঠন সোলিদারিতে আজি ফ্রন্স (সাফ) এর উদ্যোগে প্রধানতঃ প্রবাসী বাংলাদেশী মহিলা উদ্যোক্তাদের নানা পণ্য নিয়ে একটি মেলার আয়োজন করে। সংক্ষিপ্ত প্রস্ততিতে এবং সীমিত প্রচারনা সত্বেও অনলাইন ভিত্তিক ব্যবসা পরিচালনাকারী ২৫ জন মহিলা উদ্যোক্তা তাদের পণ্য নিয়ে এই মেলায় হাজির হয়।
মেলায় মূলতঃ মহিলাদের ড্রেসের প্রাধান্য দেখা যায়। ছিলো অলংকার পণ্য, বোরখা। আর পুরুষদের জন্য পাঞ্জাবি, টুপি। ছিলো তাসবীহ, জায় নামাজ। বাসাবাড়ির সিকিউরিটি সিস্টেম বিপণনের পণ্যের একটি স্টলও ছিলো। মেলায় আকষ্মিকভাবে উপস্থিত হন ফরাসী পার্লামেন্টারিয়ান দানিয়েল অবনো।

এমন আয়োজন নিয়ে কথা হয় ‘সাফ’ এর প্রেসিডেন্ট নয়ন এনকে। তিনি জানান, প্যারিস হলো বহু ভাষা বর্ণ গোত্রের বসবাসকারী একটি রাজধানী। তাদের যেমন সাংস্কৃতিক ভিন্নতা রয়েছে তেমনি রয়েছে পোষাক পরিচ্ছদে ভিন্নতা। এই ভিন্নতার বৈচিত্র্যকে আমরা মেলার মাধ্যমে ফুটিয়ে তুলতে চাই। এই মেলায় প্রবাসী বাংলাদেশীরা যেমন এসেছে। অন্যান্যরাও কৌতুহল নিয়ে এসেছে। তিনি অভিমত রাখেন, এধরনের উদ্যোগ ফরাসী সমাজের সাথে ‘ইন্টিগ্রেশন’ এ ভূমিকা রাখবে।

নয়ন এনকে বলছিলেন, এবারের মেলাটি খুবই কম সময়ের মধ্যে করতে হয়েছে। তবে সকলের স্বতস্ফুর্ত অংশগ্রহণ দেখে আমরা চমৎকৃত। তিনি জানান, এখানে আজ ২৫ জন উদ্যোক্তা তাদের পণ্য নিয়ে মেলায় হাজির হয়েছে। যদিও নিবন্ধন করেছিলো ২০ জন। এই স্টলগুলো ছিলো সম্পূর্ণ ফ্রী।
তিনি আশা প্রকাশ করেন, আগামীতে আরো ব্যাপক প্রস্তুতি এবং বৃহৎ আকারে এই মেলার আয়োজন করা হবে। এতে কেবল প্রবাসী বাংলাদেশীরাই নয়, অন্যান্য দেশের প্রবাসীদেরও অংশগ্রহণের সুযোগ তৈরি করা হবে। মেলায় উল্লেখযোগ্য সংখ্যক বাংলাদেশী উপস্থিত ছিলো।

ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

লক ডাউন পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবেলায় ফ্রান্সে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি

যুক্তরাজ্যে করোনার মধ্যেই শিশুদের মাঝে নতুন রোগের হানা

তরুণ উদ্যোক্তা মাসুদ মিয়া-আয়ুব হাসানের যৌথ প্রয়াসের প্রতিষ্ঠান পিংক সিটি

সামাজিক সংস্থা ‘সাফ’ এর উদ্যোগে প্যারিসে ‘ঈদ বাণিজ্য মেলা-২০২৩’

আপডেট সময় ১০:২১:০১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৩

প্যারিসের ঐতিহাসিক রিপাবলিক চত্তরে বাঙালী উদ্যোক্তাদের পসার বসেছিলো রোববার (১৬ এপ্রিল)। সামাজিক সংগঠন সোলিদারিতে আজি ফ্রন্স (সাফ) এর উদ্যোগে প্রধানতঃ প্রবাসী বাংলাদেশী মহিলা উদ্যোক্তাদের নানা পণ্য নিয়ে একটি মেলার আয়োজন করে। সংক্ষিপ্ত প্রস্ততিতে এবং সীমিত প্রচারনা সত্বেও অনলাইন ভিত্তিক ব্যবসা পরিচালনাকারী ২৫ জন মহিলা উদ্যোক্তা তাদের পণ্য নিয়ে এই মেলায় হাজির হয়।
মেলায় মূলতঃ মহিলাদের ড্রেসের প্রাধান্য দেখা যায়। ছিলো অলংকার পণ্য, বোরখা। আর পুরুষদের জন্য পাঞ্জাবি, টুপি। ছিলো তাসবীহ, জায় নামাজ। বাসাবাড়ির সিকিউরিটি সিস্টেম বিপণনের পণ্যের একটি স্টলও ছিলো। মেলায় আকষ্মিকভাবে উপস্থিত হন ফরাসী পার্লামেন্টারিয়ান দানিয়েল অবনো।

এমন আয়োজন নিয়ে কথা হয় ‘সাফ’ এর প্রেসিডেন্ট নয়ন এনকে। তিনি জানান, প্যারিস হলো বহু ভাষা বর্ণ গোত্রের বসবাসকারী একটি রাজধানী। তাদের যেমন সাংস্কৃতিক ভিন্নতা রয়েছে তেমনি রয়েছে পোষাক পরিচ্ছদে ভিন্নতা। এই ভিন্নতার বৈচিত্র্যকে আমরা মেলার মাধ্যমে ফুটিয়ে তুলতে চাই। এই মেলায় প্রবাসী বাংলাদেশীরা যেমন এসেছে। অন্যান্যরাও কৌতুহল নিয়ে এসেছে। তিনি অভিমত রাখেন, এধরনের উদ্যোগ ফরাসী সমাজের সাথে ‘ইন্টিগ্রেশন’ এ ভূমিকা রাখবে।

নয়ন এনকে বলছিলেন, এবারের মেলাটি খুবই কম সময়ের মধ্যে করতে হয়েছে। তবে সকলের স্বতস্ফুর্ত অংশগ্রহণ দেখে আমরা চমৎকৃত। তিনি জানান, এখানে আজ ২৫ জন উদ্যোক্তা তাদের পণ্য নিয়ে মেলায় হাজির হয়েছে। যদিও নিবন্ধন করেছিলো ২০ জন। এই স্টলগুলো ছিলো সম্পূর্ণ ফ্রী।
তিনি আশা প্রকাশ করেন, আগামীতে আরো ব্যাপক প্রস্তুতি এবং বৃহৎ আকারে এই মেলার আয়োজন করা হবে। এতে কেবল প্রবাসী বাংলাদেশীরাই নয়, অন্যান্য দেশের প্রবাসীদেরও অংশগ্রহণের সুযোগ তৈরি করা হবে। মেলায় উল্লেখযোগ্য সংখ্যক বাংলাদেশী উপস্থিত ছিলো।