ঢাকা ১২:৩২ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
প্রবাসে বাংলার সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য ধরে রাখার লক্ষ্যে রোমে বৃহত্তম ঢাকাবাসীর পিঠা উৎসব নতুন তত্ত্ব ও জ্ঞান সৃষ্টি বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল উদ্দেশ্যঃ ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ জহিরুল হক ফ্রান্স দর্পণ পত্রিকার সম্পাদকের ভাইয়ের মৃত্যুতে প্যারিসে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত ইপিএস কমিউনিটি ইন ফ্রান্স এর উদ্যোগে মহান বিজয় দিবস পালিত গ্লোবাল জালালাবাদ এসোসিয়েশন ফ্রান্সের নবগঠিত কমিটির আত্মপ্রকাশ ফরাসি নাট্যমঞ্চে বাংলাদেশি শোয়েব বালাগঞ্জে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালিত রুপালী ব্যাংক লিমিটেড সুলতানপুর শাখার উদ্যোগে প্রকাশ্যে কৃষি ও পল্লী ঋণ বিতরণ অনুষ্ঠিত সাজাপ্রাপ্ত এক আসামীকে গ্রেফতার করেছে বালাগঞ্জ থানায় পুলিশ গহরপুরে কৃতি ফুটবলার লায়েক আহমদ সংবর্ধিত; জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে লেখাপড়ার গুরুত্ব অনুভব করেছি

সামাজিক সংস্থা ‘সাফ’ এর উদ্যোগে প্যারিসে ‘ঈদ বাণিজ্য মেলা-২০২৩’

  • আপডেট সময় ১০:২১:০১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৩
  • ৩০৯ বার পড়া হয়েছে

প্যারিসের ঐতিহাসিক রিপাবলিক চত্তরে বাঙালী উদ্যোক্তাদের পসার বসেছিলো রোববার (১৬ এপ্রিল)। সামাজিক সংগঠন সোলিদারিতে আজি ফ্রন্স (সাফ) এর উদ্যোগে প্রধানতঃ প্রবাসী বাংলাদেশী মহিলা উদ্যোক্তাদের নানা পণ্য নিয়ে একটি মেলার আয়োজন করে। সংক্ষিপ্ত প্রস্ততিতে এবং সীমিত প্রচারনা সত্বেও অনলাইন ভিত্তিক ব্যবসা পরিচালনাকারী ২৫ জন মহিলা উদ্যোক্তা তাদের পণ্য নিয়ে এই মেলায় হাজির হয়।
মেলায় মূলতঃ মহিলাদের ড্রেসের প্রাধান্য দেখা যায়। ছিলো অলংকার পণ্য, বোরখা। আর পুরুষদের জন্য পাঞ্জাবি, টুপি। ছিলো তাসবীহ, জায় নামাজ। বাসাবাড়ির সিকিউরিটি সিস্টেম বিপণনের পণ্যের একটি স্টলও ছিলো। মেলায় আকষ্মিকভাবে উপস্থিত হন ফরাসী পার্লামেন্টারিয়ান দানিয়েল অবনো।

এমন আয়োজন নিয়ে কথা হয় ‘সাফ’ এর প্রেসিডেন্ট নয়ন এনকে। তিনি জানান, প্যারিস হলো বহু ভাষা বর্ণ গোত্রের বসবাসকারী একটি রাজধানী। তাদের যেমন সাংস্কৃতিক ভিন্নতা রয়েছে তেমনি রয়েছে পোষাক পরিচ্ছদে ভিন্নতা। এই ভিন্নতার বৈচিত্র্যকে আমরা মেলার মাধ্যমে ফুটিয়ে তুলতে চাই। এই মেলায় প্রবাসী বাংলাদেশীরা যেমন এসেছে। অন্যান্যরাও কৌতুহল নিয়ে এসেছে। তিনি অভিমত রাখেন, এধরনের উদ্যোগ ফরাসী সমাজের সাথে ‘ইন্টিগ্রেশন’ এ ভূমিকা রাখবে।

নয়ন এনকে বলছিলেন, এবারের মেলাটি খুবই কম সময়ের মধ্যে করতে হয়েছে। তবে সকলের স্বতস্ফুর্ত অংশগ্রহণ দেখে আমরা চমৎকৃত। তিনি জানান, এখানে আজ ২৫ জন উদ্যোক্তা তাদের পণ্য নিয়ে মেলায় হাজির হয়েছে। যদিও নিবন্ধন করেছিলো ২০ জন। এই স্টলগুলো ছিলো সম্পূর্ণ ফ্রী।
তিনি আশা প্রকাশ করেন, আগামীতে আরো ব্যাপক প্রস্তুতি এবং বৃহৎ আকারে এই মেলার আয়োজন করা হবে। এতে কেবল প্রবাসী বাংলাদেশীরাই নয়, অন্যান্য দেশের প্রবাসীদেরও অংশগ্রহণের সুযোগ তৈরি করা হবে। মেলায় উল্লেখযোগ্য সংখ্যক বাংলাদেশী উপস্থিত ছিলো।

ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

লক ডাউন পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবেলায় ফ্রান্সে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি

যুক্তরাজ্যে করোনার মধ্যেই শিশুদের মাঝে নতুন রোগের হানা

প্রবাসে বাংলার সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য ধরে রাখার লক্ষ্যে রোমে বৃহত্তম ঢাকাবাসীর পিঠা উৎসব

সামাজিক সংস্থা ‘সাফ’ এর উদ্যোগে প্যারিসে ‘ঈদ বাণিজ্য মেলা-২০২৩’

আপডেট সময় ১০:২১:০১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৩

প্যারিসের ঐতিহাসিক রিপাবলিক চত্তরে বাঙালী উদ্যোক্তাদের পসার বসেছিলো রোববার (১৬ এপ্রিল)। সামাজিক সংগঠন সোলিদারিতে আজি ফ্রন্স (সাফ) এর উদ্যোগে প্রধানতঃ প্রবাসী বাংলাদেশী মহিলা উদ্যোক্তাদের নানা পণ্য নিয়ে একটি মেলার আয়োজন করে। সংক্ষিপ্ত প্রস্ততিতে এবং সীমিত প্রচারনা সত্বেও অনলাইন ভিত্তিক ব্যবসা পরিচালনাকারী ২৫ জন মহিলা উদ্যোক্তা তাদের পণ্য নিয়ে এই মেলায় হাজির হয়।
মেলায় মূলতঃ মহিলাদের ড্রেসের প্রাধান্য দেখা যায়। ছিলো অলংকার পণ্য, বোরখা। আর পুরুষদের জন্য পাঞ্জাবি, টুপি। ছিলো তাসবীহ, জায় নামাজ। বাসাবাড়ির সিকিউরিটি সিস্টেম বিপণনের পণ্যের একটি স্টলও ছিলো। মেলায় আকষ্মিকভাবে উপস্থিত হন ফরাসী পার্লামেন্টারিয়ান দানিয়েল অবনো।

এমন আয়োজন নিয়ে কথা হয় ‘সাফ’ এর প্রেসিডেন্ট নয়ন এনকে। তিনি জানান, প্যারিস হলো বহু ভাষা বর্ণ গোত্রের বসবাসকারী একটি রাজধানী। তাদের যেমন সাংস্কৃতিক ভিন্নতা রয়েছে তেমনি রয়েছে পোষাক পরিচ্ছদে ভিন্নতা। এই ভিন্নতার বৈচিত্র্যকে আমরা মেলার মাধ্যমে ফুটিয়ে তুলতে চাই। এই মেলায় প্রবাসী বাংলাদেশীরা যেমন এসেছে। অন্যান্যরাও কৌতুহল নিয়ে এসেছে। তিনি অভিমত রাখেন, এধরনের উদ্যোগ ফরাসী সমাজের সাথে ‘ইন্টিগ্রেশন’ এ ভূমিকা রাখবে।

নয়ন এনকে বলছিলেন, এবারের মেলাটি খুবই কম সময়ের মধ্যে করতে হয়েছে। তবে সকলের স্বতস্ফুর্ত অংশগ্রহণ দেখে আমরা চমৎকৃত। তিনি জানান, এখানে আজ ২৫ জন উদ্যোক্তা তাদের পণ্য নিয়ে মেলায় হাজির হয়েছে। যদিও নিবন্ধন করেছিলো ২০ জন। এই স্টলগুলো ছিলো সম্পূর্ণ ফ্রী।
তিনি আশা প্রকাশ করেন, আগামীতে আরো ব্যাপক প্রস্তুতি এবং বৃহৎ আকারে এই মেলার আয়োজন করা হবে। এতে কেবল প্রবাসী বাংলাদেশীরাই নয়, অন্যান্য দেশের প্রবাসীদেরও অংশগ্রহণের সুযোগ তৈরি করা হবে। মেলায় উল্লেখযোগ্য সংখ্যক বাংলাদেশী উপস্থিত ছিলো।