ঢাকা ০৪:১১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
বালাগঞ্জের হাফিজ মাওলানা সামসুল ইসলাম লন্ডনের university of central Lancashire থেকে মাস্টার্স ডিগ্রী অর্জন করলেন বালাগঞ্জে সাংবাদিকদের সাথে উপ-নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হাজী রফিক আহমদ এর মতবিনিময় দেওয়ানবাজার ইউপি চেয়ারম্যান নাজমুল আলমের পক্ষ থেকে বন্যার্তদের মাঝে খাবার বিতরণ জনকল্যাণ ডেভেলপমেন্ট এসোসিয়েশন ইউকের পক্ষ থেকে উপহার সামগ্রী বিতরণ প্যারিসে অনুষ্ঠিত হলো, ‘রৌদ্র ছায়ায় কবি কন্ঠে কাব্য কথা’ শীর্ষক কবিতায় আড্ডা ফ্রান্স দর্পণ – কমিউনিটি-সংবেদনশীল মুখপত্র এম সি ইন্সটিটিউট ফ্রান্সের সুধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত বিএনপি চেয়ারপারসনের “স্পেশাল এসিস্ট্যান্ট টু দ্য ফরেন এফেয়ার্স” উপদেষ্টা হলেন হাজি হাবিব ইপিএস কমিউনিটি ফ্রান্সের আয়োজনে অনুষ্ঠিত হলো ‘ফেত দ্যো লা মিউজিক ২০২৪ তরুণ উদ্যোক্তা মাসুদ মিয়া-আয়ুব হাসানের যৌথ প্রয়াসের প্রতিষ্ঠান পিংক সিটি

ফ্রান্স প্রবাসীদের নিরাপত্তা সংকট ঃ দরকার দূতাবাসকে সংগে নিয়ে সম্মিলিত উদ্যোগ

  • আপডেট সময় ০৩:২০:২৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১ জুন ২০১৯
  • ৩০৮ বার পড়া হয়েছে

Warning: Attempt to read property "post_excerpt" on null in /home/u305720254/domains/francedorpan.com/public_html/wp-content/themes/newspaper-pro/template-parts/common/single_two.php on line 117

নিঃসন্দেহে ফ্রান্স বিশ্বের সবচেয়ে মানবতাবাদী দেশগুলির অন্যতম। আর তাদের মহানুভবতা ও মানবতাবাদী আইনের ফাঁক দিয়ে,আফ্রিকা ও মাগরেব অঞ্চল থেকে আগত ও আশ্রিত অভিবাসীদের বয়সে অপেক্ষাকৃত তরুণ একটি অংশ জড়িয়ে পড়েছে ছিনতাই, চুরি ডাকাতির মত নানা অপরাধে। আর এসব ছিচকে অপরাধীদের প্রধান টার্গেটে পরিনত হতে চলেছেন সেখানকার বাংলাদেশী অভিবাসীরা। মূলত নিরিহ টাইপ অথচ পরিশ্রম লব্ধ টাকা, মোবাইল বা মূল্যবান জিনিস পাওয়ার সম্ভাবনা থেকেই বাংলাদেশী অভিবাসীরা টার্গেটে পরিনত হয়েছেন। উপরন্তু রয়েছে প্রবল ভাষাগত দূর্বলতা। পক্ষান্তরে বিভিন্ন সাবেক ফরাসী কলনি থেকে আসা এসব অপরাধীরা ফ্রেঞ্চ ভাষায় বিশেষ পারদর্শী। ফলে একদিকে বাংলাদেশীরা পুলিশের কাছে যে কোন ঘটনার পূর্বাপর বর্ননা দিতে যেমন দূর্বল বা অনেকাংশে সেখানে বসবাসের প্রয়োজনীয় বৈধতার প্রশ্ন আসার ভয়ে তটস্থ অন্যদিকে অপরাধীরা ভাষা দক্ষতায় কাল্পনিক কাহিনীর মাধ্যমে সহজেই পুলিশের কাছ থেকে প্রাথমিক ছাড় পেয়ে যাচ্ছে। এমন অবস্থায় দিন দিন এসব অপরাধ বেড়েই চলেছে। একসময় বাংলাদেশী প্রবাসীরা কেবল রাস্তায় ছিনতাই, চুরি বা হামলার শিকার হতেন এখন এ অপরাধ চক্র অস্ত্রসহ বাসায় এসে হানা দেয়ার সাহস দেখাচ্ছে! সর্বশেষ গত ৩০ মে রাতে পুলিশ পরিচয়ে ডাকাত দল বাসায় ঢুকে বাসার মালিকসহ অন্যান্য সদস্যদের বেধে মারধর করে সর্বস্ব নিয়ে পালিয়ে যায়। এসব আক্রমনে এদিকে যেমন প্রবাসীরা কষ্টার্জিত অর্থ-সম্পদ হারাচ্ছেন তেমনি স্থায়ীভাবে বিকলাঙ্গ হয়ে পড়ছেন কেউ কেউ! দূর্ভাগ্যবশতঃ এখানকার দূতাবাসের কোন বিকার নেই তাতে। আবার বহুধা বিভক্ত কমিউনিটি এ সমস্যা সমাধানে কার্যকর কোন পদক্ষেপ নিতে ব্যার্থ হয়েছে।
ফ্রান্সের বাংলাদেশী সাংবাদিকদের সংগঠন প্যারিস বাংলা প্রেসক্লাব (অধুনা ফ্রান্স-বাংলাদেশ প্রেসক্লাব নামে পরিবর্তিত) বিভিন্ন সময় অবস্তান কর্মসূচি, মানব বন্ধন বা স্মারকলিপির মাধ্যমে সাধারণ প্রবাসীদের নিয়ে প্রতিবাদের চেষ্টা করেছে। পুলিশের সাথে বিভিন্ন বৈঠকে এ প্রতিবেদকের উপস্থিত থেকে আলোচনা করার অভিজ্ঞতাও সুখকর নয়।
প্যারিসে দক্ষিন-পূর্ব এশিয়া অঞ্চল থেকে আগত অভিবাসীদের নিয়ে কাজ করেন এমন দুই জন (নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক) দায়িত্বশীল কর্মকর্তা মনে করেন, এ সমস্যা সমাধানে সবচেয়ে বড় ভূমিকা নিতে হবে বাংলাদেশ দূতাবাসকে। এ ব্যাপারে দূতাবাসের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তারা বিষয়টি নিয়ে কাজ করছেন বললেও বাস্তবে কোন অগ্রগতি দেখা যায়নি।
প্রবাসী বিভিন্ন সংঘটন অনেক সময় লোক দেখানো কিছু প্রশাসনিক বৈঠকের কথা বললেও তার মিডিয়া দর্শন ছাড়া বিশেষ কিছু নয়।
সাধারণ প্রবাসীরা মনে করছেন, এ ধরনের সমস্যা সমাধানে দূতাবাস ও প্রবাসীরা মিলে দ্রুত কার্যকর ও সমন্বিত পদক্ষেপ না নিলে বাংলাদেশী প্রবাসী নির্যাতনের মাত্রা আরো বাড়বে।

শামসুল ইসলাম, সম্পাদক, ফ্রান্স দর্পণ

ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

লক ডাউন পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবেলায় ফ্রান্সে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি

যুক্তরাজ্যে করোনার মধ্যেই শিশুদের মাঝে নতুন রোগের হানা

বালাগঞ্জের হাফিজ মাওলানা সামসুল ইসলাম লন্ডনের university of central Lancashire থেকে মাস্টার্স ডিগ্রী অর্জন করলেন

ফ্রান্স প্রবাসীদের নিরাপত্তা সংকট ঃ দরকার দূতাবাসকে সংগে নিয়ে সম্মিলিত উদ্যোগ

আপডেট সময় ০৩:২০:২৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১ জুন ২০১৯

নিঃসন্দেহে ফ্রান্স বিশ্বের সবচেয়ে মানবতাবাদী দেশগুলির অন্যতম। আর তাদের মহানুভবতা ও মানবতাবাদী আইনের ফাঁক দিয়ে,আফ্রিকা ও মাগরেব অঞ্চল থেকে আগত ও আশ্রিত অভিবাসীদের বয়সে অপেক্ষাকৃত তরুণ একটি অংশ জড়িয়ে পড়েছে ছিনতাই, চুরি ডাকাতির মত নানা অপরাধে। আর এসব ছিচকে অপরাধীদের প্রধান টার্গেটে পরিনত হতে চলেছেন সেখানকার বাংলাদেশী অভিবাসীরা। মূলত নিরিহ টাইপ অথচ পরিশ্রম লব্ধ টাকা, মোবাইল বা মূল্যবান জিনিস পাওয়ার সম্ভাবনা থেকেই বাংলাদেশী অভিবাসীরা টার্গেটে পরিনত হয়েছেন। উপরন্তু রয়েছে প্রবল ভাষাগত দূর্বলতা। পক্ষান্তরে বিভিন্ন সাবেক ফরাসী কলনি থেকে আসা এসব অপরাধীরা ফ্রেঞ্চ ভাষায় বিশেষ পারদর্শী। ফলে একদিকে বাংলাদেশীরা পুলিশের কাছে যে কোন ঘটনার পূর্বাপর বর্ননা দিতে যেমন দূর্বল বা অনেকাংশে সেখানে বসবাসের প্রয়োজনীয় বৈধতার প্রশ্ন আসার ভয়ে তটস্থ অন্যদিকে অপরাধীরা ভাষা দক্ষতায় কাল্পনিক কাহিনীর মাধ্যমে সহজেই পুলিশের কাছ থেকে প্রাথমিক ছাড় পেয়ে যাচ্ছে। এমন অবস্থায় দিন দিন এসব অপরাধ বেড়েই চলেছে। একসময় বাংলাদেশী প্রবাসীরা কেবল রাস্তায় ছিনতাই, চুরি বা হামলার শিকার হতেন এখন এ অপরাধ চক্র অস্ত্রসহ বাসায় এসে হানা দেয়ার সাহস দেখাচ্ছে! সর্বশেষ গত ৩০ মে রাতে পুলিশ পরিচয়ে ডাকাত দল বাসায় ঢুকে বাসার মালিকসহ অন্যান্য সদস্যদের বেধে মারধর করে সর্বস্ব নিয়ে পালিয়ে যায়। এসব আক্রমনে এদিকে যেমন প্রবাসীরা কষ্টার্জিত অর্থ-সম্পদ হারাচ্ছেন তেমনি স্থায়ীভাবে বিকলাঙ্গ হয়ে পড়ছেন কেউ কেউ! দূর্ভাগ্যবশতঃ এখানকার দূতাবাসের কোন বিকার নেই তাতে। আবার বহুধা বিভক্ত কমিউনিটি এ সমস্যা সমাধানে কার্যকর কোন পদক্ষেপ নিতে ব্যার্থ হয়েছে।
ফ্রান্সের বাংলাদেশী সাংবাদিকদের সংগঠন প্যারিস বাংলা প্রেসক্লাব (অধুনা ফ্রান্স-বাংলাদেশ প্রেসক্লাব নামে পরিবর্তিত) বিভিন্ন সময় অবস্তান কর্মসূচি, মানব বন্ধন বা স্মারকলিপির মাধ্যমে সাধারণ প্রবাসীদের নিয়ে প্রতিবাদের চেষ্টা করেছে। পুলিশের সাথে বিভিন্ন বৈঠকে এ প্রতিবেদকের উপস্থিত থেকে আলোচনা করার অভিজ্ঞতাও সুখকর নয়।
প্যারিসে দক্ষিন-পূর্ব এশিয়া অঞ্চল থেকে আগত অভিবাসীদের নিয়ে কাজ করেন এমন দুই জন (নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক) দায়িত্বশীল কর্মকর্তা মনে করেন, এ সমস্যা সমাধানে সবচেয়ে বড় ভূমিকা নিতে হবে বাংলাদেশ দূতাবাসকে। এ ব্যাপারে দূতাবাসের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তারা বিষয়টি নিয়ে কাজ করছেন বললেও বাস্তবে কোন অগ্রগতি দেখা যায়নি।
প্রবাসী বিভিন্ন সংঘটন অনেক সময় লোক দেখানো কিছু প্রশাসনিক বৈঠকের কথা বললেও তার মিডিয়া দর্শন ছাড়া বিশেষ কিছু নয়।
সাধারণ প্রবাসীরা মনে করছেন, এ ধরনের সমস্যা সমাধানে দূতাবাস ও প্রবাসীরা মিলে দ্রুত কার্যকর ও সমন্বিত পদক্ষেপ না নিলে বাংলাদেশী প্রবাসী নির্যাতনের মাত্রা আরো বাড়বে।

শামসুল ইসলাম, সম্পাদক, ফ্রান্স দর্পণ